বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘তিনি কথায় কথায় গণতন্ত্রের সবক দেন। আহসানউল্লাহ মাস্টার হত্যাকাণ্ডসহ অজস্র হত্যাকাণ্ডের দায় আপনাদের ঘাড়ে আছে। আহসানউল্লাহ মাস্টারের রক্তে আপনার নেত্রী খালেদা জিয়া ও আপনার নেতা তারেক রহমানের হাত রঞ্জিত হয়ে আছে। এখান থেকে কোনো দিন মুক্তি পাওয়ার সুযোগ নেই। আপনি যতই মায়াকান্না কাঁদেন, আওয়ামী লীগের ২৬ হাজার নেতা-কর্মীর রক্তে আপনার নেত্রীর হাত রঞ্জিত। আপনার নেতার হাত রঞ্জিত। এ হত্যাকাণ্ডের বিচার বাংলার মাটিতে হয়েছে এবং আরও হবে।’

এ সময় তিনি আহসানউল্লাহ মাস্টারের আগামী শাহাদাতবার্ষিকীর আগেই তাঁর হত্যাকাণ্ডের বিচারের রায় কার্যকর করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

আহসানউল্লাহ মাস্টারের ছেলে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মেহের আফরোজ চুমকি, সাংসদ ইকবাল হোসেন সবুজ, রুমানা আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আতাউল্লাহ মণ্ডল, জেলা পরিষদের প্রশাসক আখতারউজ্জামানসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা।

সকাল থেকে জেলার বিভিন্ন স্থান নেতা-কর্মী ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে আহসানউল্লাহ মাস্টারের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয় এবং সুরা ফাতিহা পাঠ করে মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনায় বিশেষ দোয়া করা হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন