default-image

হঠাৎ এলাকায় মেছোবাঘের আনাগোনা কৌতূহলী করে তোলে গ্রামের মানুষকে। এরই মধ্যে বাঘটি এক ব্যক্তির ছাগল খেয়ে ফেললে কৌতূহল আক্রোশে পরিণত হয়। পরে বাঘটিকে ধরতে নানা আয়োজন আর প্রস্তুতি নিয়ে অভিযানে নামেন গ্রামের বেশ কয়েকজন বাসিন্দা।

চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার মিঠানাল ইউনিয়নের পশ্চিম মলিয়াইশ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে গতকাল সোমবার রাতে। সাড়ে আটটার দিকে মানুষের তৎপরতা টের পেয়ে জীবন বাঁচাতে গ্রামের খালপাড়ের গর্তে ঢুকে পড়ে বাঘটি। এবার তা ধরতে ভিন্ন কৌশল নেন গ্রামের ওই বাসিন্দারা। গর্তের মুখে আগুনের তাপ দিলে একপর্যায়ে বের হতে বাধ্য হয় প্রায় পাঁচ ফুট লম্বা মেছোবাঘটি। ধরার পর গ্রামেরই কয়েকজন বাসিন্দার সুবিবেচনায় তা বন বিভাগের কাছে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত হলে প্রাণে রক্ষা পায় বিলুপ্ত প্রায় বন্য প্রাণীটি।

পশ্চিম মলিয়াইশ গ্রামের বাসিন্দা আলতাফ হোসেন বলেন, এক সপ্তাহ ধরে গ্রামে একটি মেছোবাঘের আনাগোনা টের পাচ্ছিলেন তাঁরা। এরই মধ্যে একটি ছাগল খেয়ে ফেললে এবং বিভিন্ন বাড়ির হাঁস-মুরগিকে তাড়া করায় বাঘটি ধরার উদ্যোগ নেন গ্রামের বেশ কয়েকজন বাসিন্দা। খালপাড়ের গর্ত থেকে বাঘটি ধরার পর দড়ি ও লোহার শিকলে বেঁধে স্থানীয় বন বিভাগের কার্যালয়ে হস্তান্তর করা হয়।

বন বিভাগের মিরসরাই উপকূলীয় রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা এরফান উদ্দিন বলেন, ধরে আনার পর সামান্য ক্ষত ছাড়া বাঘটি সুস্থই ছিল। এ কারণে রাত সাড়ে ১০টার দিকে গোভানীয়া বন বিটের গভীর বনে বাঘটি অবমুক্ত করা হয়।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন