বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

খবর পেয়ে বরপক্ষ পৌঁছানোর আগেই ইউএনও ছুটে গিয়ে ওই বিয়ে বন্ধ করে দেন। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ওই কিশোরীর মাকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে ১৮ বছরের আগে মেয়ের বিয়ে দেবেন না মর্মে তাঁর কাছ থেকে মুচলেকা নেওয়া হয়।

ইউএনও খাতুনে জান্নাত জানান, বুধবার দুপুরে গোপনে এক কিশোরীর বিয়ের আয়োজন করে তার পরিবার। এলাকাবাসীর মাধ্যমে খবর পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে দশম শ্রেণি পড়ুয়া ওই কিশোরীর বিয়ে বন্ধ করা হয়।

খাতুনে জান্নাত বলেন, ‘আমাদের অভিযানের খবর পেয়ে কিশোরীর বাবা পালিয়ে যাওয়ায় তার মাকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা এবং মেয়েকে বাল্যবিবাহ দেবেন না মর্মে মুচলেকা আদায় করা হয়।’ ইউএনও আরও বলেন, ‘গত ৬ জুন শরণখোলা উপজেলায় দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে এ পর্যন্ত ছয়টি বাল্যবিবাহ বন্ধ করেছি।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন