বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গৌরনদী উপজেলার খাঞ্জাপুর ইউনিয়নে ১৪ বছরের এক কিশোরীর সঙ্গে একই গ্রামের ২৬ বছরের যুবকের সঙ্গে বিয়ের আয়োজন চলছিল। খবর পেয়ে আজ দুপুরে পুলিশ নিয়ে কিশোরীর বাড়িতে গিয়ে ইউএনও বিপিন চন্দ্র বিশ্বাস বিয়ে বন্ধ করেন। এ সময় স্থানীয় ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে ১৮ বছরের আগে মেয়ের বিয়ে নয়, এই শর্তে কিশোরীর মা–বাবার মুচলেকা নেওয়া হয়।

ইউএনও বিপিন চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, বাল্যবিবাহ একটি সামাজিক ব্যাধি। যেকোনো মূল্যে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করা হবে। এ ব্যাপারে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে স্থানীয়ভাবে সবার সহযোগিতা চেয়েছেন এবং গণসচেতনতা গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন