বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ছেলেটির নানা কবির শেখের ভাষ্য, তাঁর নাতি বিলমাড়িয়া উচ্চবিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ালেখা করে। রিপন তার দুই বন্ধুকে নিয়ে মজা করার জন্য পটকা বানানোর চেষ্টা করছিল। হঠাৎ বিস্ফোরণ ঘটে। ঘটনার পরপরই রিপনকে লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক কর্মকর্তা মো. সুরুজ্জামান শামীম বলেন, রিপনের আঙুল কাটার প্রয়োজন হতে পারে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহীতে নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফজলুর রহমান জানান, ঘটনাটি শোনার ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, ছেলেটি বন্ধুদের সঙ্গে মজার ছলে পটকা বানানোর চেষ্টা করছিল। তবুও বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন