default-image

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে ভিজিডির চাল আত্মসাতের অভিযোগে নলকুড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব আলীসহ দুই সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বরখাস্ত হওয়া দুই ইউপি সদস্য হলেন ওই ইউপির ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য খায়রুল এনাম চান এবং ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী সদস্য রহিমা বেওয়া।

স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব মোহাম্মদ ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত চিঠির মাধ্যমে তাঁদের সাময়িক বরখাস্তের এ আদেশ দেওয়া হয়। ঝিনাইগাতীর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুবেল মাহমুদ আজ সোমবার সন্ধ্যায় প্রথম আলোর কাছে এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, সাময়িক বরখাস্তের আদেশের চিঠিটি তিনি আজই পেয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

ইউএনও রুবেল মাহমুদ জানান, গত ৩১ আগস্ট এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব আলী, সদস্য খায়রুল এনাম চান ও রহিমা বেওয়ার সাময়িক বহিষ্কারের কথা জানানো হয়।

চিঠিতে ওই তিনজনের বিরুদ্ধে পরস্পর যোগসাজশে ভিজিডির ১২৪টি কার্ডের বিপরীতে উত্তোলিত চাল দীর্ঘ ১৮ মাস ধরে আত্মসাতের অভিযোগ করা হয়েছে। একই সঙ্গে তাঁদের বিরুদ্ধে প্রকৃত কার্ডধারীদের মধ্যে ভিজিডির চাল বিতরণ না করে টাকার বিনিময়ে সচ্ছল ব্যক্তিদের ভিজিডি কার্ড প্রদানের অভিযোগ আনা হয়েছে। সঙ্গে অনৈতিকভাবে জিআর চাল বিতরণের কপিকে ভিজিডি কার্ড গ্রহণের রিসিভ কপি বলে ব্যবহারের অপচেষ্টার অভিযোগ স্থানীয় তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।

এসব কারণে স্থানীয় সরকার আইন, ২০০৯-এর ৩৪ উপধারা (১) অনুযায়ী ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ুব আলীসহ ওই দুই ইউপি সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

তবে এসব অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট উল্লেখ করে ইউপি চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব আলী বলেন, মন্ত্রণালয়ের সাময়িক বরখাস্তের চিঠিটি তিনি পেয়েছেন। স্থানীয় কিছু অসৎ ব্যক্তি তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে এ কাজ করিয়েছেন। এ আদেশের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবেন বলে জানান তিনি। তবে সাময়িক বরখাস্ত হওয়া অপর দুই ইউপি সদস্যের বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।
ইউএনও রুবেল মাহমুদ বলেন, মন্ত্রণালয়ের চিঠি অনুযায়ী চেয়ারম্যানসহ দুই ইউপি সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করার নির্দেশ ইতিমধ্যে কার্যকর হয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0