default-image

ফরিদপুরের সালথায় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) এক সদস্যের ইয়াবা সেবনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। বৃহস্পতিবার রাত থেকে ফেসবুকে ইয়াবা সেবনের ভিডিও প্রকাশের পর সমালোচনার ঝড় ওঠে। ভিডিওটি উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মনজুরুল ইসলামের (৩৭) বলে দাবি করা হয়েছে। তিনি ইউনিয়নের বাহিরদিয়া গ্রামের বাসিন্দা।
বৃহস্পতিবার রাত ১১টা ৪৩ মিনিটে ওই ইউপি সদস্যের নিজ গ্রাম বাহিরদিয়ার সাইফুল ইসলাম নামের এক যুবক তাঁর ফেসবুক আইডিতে ইয়াবা সেবনের ভিডিওটি আপলোড দেন। ৪০ সেকেন্ডের ভিডিওটি মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে।

বিজ্ঞাপন

সাইফুল ইসলাম তাঁর স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘ফরিদপুর জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। ফরিদপুরের সালথা উপজেলার ১ নম্বর রামকান্তপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মনজুরুল ইসলাম ওরফে মঞ্জু নিজের ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে অবৈধ অর্থ অপার্জনের লক্ষ্যে গাঁজা ও সর্বনাশা ইয়াবার ব্যবসা করে এলাকার যুবসমাজকে দিন দিন ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছেন। তাই মাননীয় জেলা প্রশাসক মহোদয়কে সবিনয় অনুরোধ করছি, আপনি অতি দ্রুত মঞ্জু মেম্বারের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করে এলাকার যুবসমাজকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করুন।’

এ বিষয়ে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ইউপি সদস্য মনজুরুল ইসলাম দাবি করেন, ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওটি তাঁর নয়। তিনি বলেন, ‘আমার গ্রামের প্রতিপক্ষের এক যুবক এই ভিডিও শেয়ার করে অপপ্রচার চালাচ্ছেন।’

বিজ্ঞাপন

রামকান্তপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আশরাফ আলী বলেন, ‘আমার ইউপির এক সদস্যের ইয়াবা সেবনের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে বলে আমি শুনেছি। তবে এ বিষয় আমি কিছু বলতে পারব না।’
সালথা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ হাসিব সরকার বলেন, তাঁর মেসেঞ্জারে কয়েক ব্যক্তি ওই ভিডিও পাঠিয়েছেন। ভিডিওটি তিনি দেখেছেন। তদন্ত করে এ ঘটনার সত্যতা পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0