default-image

পিরোজপুরের ইন্দুরকানি উপজেলায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে ভাতিজাদের হামলায় ইসমাইল চৌকিদার (৫৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। আজ রোববার ভোরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

নিহত ইসমাইল চৌকিদার উপজেলার বালিপাড়া গ্রামের মৃত অদেল চৌকিদারের ছেলে।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় ইসমাইল চৌকিদার ছেলে ফিরোজ চৌকিদারকে (২৫) নিয়ে উপজেলার দেবীপুরে গ্রামে শ্বশুরবাড়ি যাচ্ছিলেন। সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের সড়ক দিয়ে যাওয়ার সময় সাত থেকে আটজনের একটি দল তাঁদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও ইট দিয়ে আঘাত করে ফেলে রেখে চলে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁদের উদ্ধার করে। প্রথমে তাঁদের পিরোজপুর সদর হাসপাতালে ও পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। আজ ভোররাত চারটার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইসমাইল চৌকিদার মারা যান। গুরুতর আহত ফিরোজ চৌকিদার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বিজ্ঞাপন

ফিরোজ চৌকিদার বলেন, ‘গতকাল সন্ধ্যায় আমি ও আমার বাবা নানাবাড়ি যাচ্ছিলাম। এ সময় পূর্বশত্রুতার জের ধরে আমার চাচাতো ভাই সাইফুল চৌকিদার, শহীদ চৌকিদার, জুয়েল চৌকিদার, সোহেল চৌকিদারসহ সাত থেকে আটজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালায়।’

এ বিষয়ে সাইফুল চৌকিদারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তাঁর মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

ইন্দুরকানি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির দুপুরে বলেন, গতকাল রাতে খবর পেয়ে উপজেলার রামচন্দ্রপুর এলাকা থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় বাবা ও ছেলেকে উদ্ধার করা হয়। পরে তাঁদের চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাবার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন