বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হামলায় আহত ওমর ফারুক জানান, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তিনি তাঁর এলাকা ভোলাইল গেদ্দারবাজার এলাকায় ক্যাম্প করেন। সেখানে গতকাল রাতে তিনিসহ কয়েকজন বসে আলোচনা করছিলেন। রাত ১০টার দিকে সাইফুল্লাহর নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক লোকজন মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে হঠাৎ তাঁর ক্যাম্পে হামলা চালান। হামলাকারীরা ক্যাম্পে ভাঙচুর করেন এবং তিনি বাধা দিলে তাঁর ওপর হামলা চালান। এতে তিনি জখম হন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে রাত সাড়ে ১২টার দিকে ওমর ফারুকের সমর্থকেরা ফতুল্লা মডেল থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেন।

মহানগর ইসলামী আন্দোলনের সাবেক সভাপতি মুফতি মাসুম বিল্লাহ্ জানান, নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক লোকজন তাঁদের নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছেন। এ সময় ওমর ফারুককে এলোপাতাড়ি মারধর করা হয়। এতে তাঁর মাথা ফেটে যায়। এমনকি ওমর ফারুক যাতে নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে না পারে, সে জন্য তাঁকে নানাভাবে হুমকি ও চাপ দেওয়া হচ্ছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।

অভিযোগের বিষয়ে সাইফুল্লাহ্ বাদলের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাঁর মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তবে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী জানান, নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে হোক এটাই তাঁরা চান। যে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে, সেটি যাতে আর না ঘটে।

ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রকিবুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মতিয়ুর রহমান জানান, হামলার শিকার প্রার্থীর লোকজন লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ বিষয়ে প্রশাসনকে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন