নিহত হিরন খন্দকার (৫৭) শিবপুরের দুলালপুর ইউনিয়নের শিমুলিয়া গ্রামের হাসেন আলী খন্দকারের ছেলে। অন্যদিকে আহত ব্যক্তিরা হলেন রবিন ও হৃদয়। তাঁদের আনুমানিক বয়স ২০ বছর। তাঁরা দুজনই শিবপুরের দুলালপুরের নন্দিরগাঁও এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, হিরন খন্দকার ঈদের ছুটি কাটাতে গতকাল রাতে বাড়ি ফিরছিলেন। লাখপুর-শিমুলিয়া বাজারে নেমে তিনি একটি ওষুধের দোকান থেকে কিছু ওষুধ কেনেন। রাত পৌনে ১০টার দিকে ওই দোকান থেকে বের হওয়ার পরই একটি বেপরোয়া গতির মোটরসাইকেল তাঁকে ধাক্কা দেয়। এতে মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়ে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়।

এ সময় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী রবিন ও হৃদয় নামের তরুণ সড়কে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য ১০০ শয্যাবিশিষ্ট নরসিংদী জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, মোটরসাইকেলটি বেশ বেপরোয়া গতিতে এগিয়ে আসছিল। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটরসাইকেলটি হিরন খন্দকারকে ধাক্কা দিলে তিনি অন্তত ১০ ফুট দূরে ছিটকে পড়েন। এতে মাথায় আঘাত পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান।

শিবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাউদ্দিন মিয়া বলেন, খবর পেয়ে নিহত হিরনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে দুই মোটরসাইকেল আরোহীও আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন