বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গ্রেপ্তার বাসচালক হলেন কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন উপজেলার মশুরিয়া এলাকার নুরুল হক (২১)। এ ছাড়া গ্রেপ্তার হওয়া বাকি দুজন অপ্রাপ্তবয়স্ক। এদিকে ওই গৃহবধূ রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকার বাসিন্দা।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রাত ১০টার দিকে ওই গৃহবধূ সায়েদাবাদ-গাউছিয়া রুটে চলাচলকারী মুক্তিযোদ্ধা পরিবহনে ওঠেন। সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল এলাকায় পৌঁছানোর পর বাসের সব যাত্রী নেমে যান। এরপর ওই নারী ভুলতার গাউছিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসে একা বসে ছিলেন। এরপর বাসটি বন্দরের মদনপুর এলাকায় পৌঁছানোর পর বাসে উচ্চ স্বরে গান বাজিয়ে বাসের চালক ও দুই সহকারী ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করেন। এ সময় ভুক্তভোগী প্রস্রাবের কথা বলে কৌশলে ৯৯৯ নম্বরে কল করলে পুলিশ বাস থেকে ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে এবং অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেপ্তার করে।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা প্রথম আলোকে বলেন, এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে গতকাল রাতে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে তিনজনকে আসামি করে মামলা করেছেন। গ্রেপ্তার বাসচালককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়েছে। অভিযুক্ত অন্য দুজন অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় তাদের রিমান্ড চাওয়া হয়নি। ওই গৃহবধূর শারীরিক পরীক্ষার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদিকে ঘটনাস্থল থেকে মুক্তিযোদ্ধা পরিবহনের ওই বাস জব্দ করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন