ফিলিং স্টেশনে গিয়ে তিনি পেট্রল পাননি। মোটরসাইকেল রেখে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় চলাচল করছেন।
সাখাওয়াৎ হোসেন, কলেজশিক্ষকক, গাইবান্ধা

গতকাল রোববার সকালে সরেজমিন দেখা গেছে, তেল না থাকায় রংপুর নগরের শাপলা চত্বর এলাকায় ইউনিক ফিলিং স্টেশনের পেট্রল ও অকটেন সরবরাহের যন্ত্রগুলো কালো কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে। একইভাবে নগরের বুড়িরহাট এলাকায় মীম ফিলিং স্টেশনও ঈদের এক দিন পর থেকে বন্ধ রয়েছে।

গাইবান্ধা জেলায় ১০টি ফিলিং স্টেশন রয়েছে। এসব স্টেশনে দৈনিক এক লাখ লিটার পেট্রল ও অকটেনের চাহিদা রয়েছে। সরবরাহ না থাকায় অনেক ফিলিং স্টেশন বন্ধ রয়েছে। গতকাল দুপুরে শহরের ফিলিং স্টেশনগুলো ঘুরে কর্মকর্তা–কর্মচারীদের হাত গুটিয়ে বসে থাকতে দেখা গেছে। মোটরসাইকেলের চালকেরা পেট্রল কিনতে গিয়ে ফিরে যাচ্ছেন।

গাইবান্ধা শহরের সুখনগর এলাকার কলেজশিক্ষক সাখাওয়াৎ হোসেন বলেন, ফিলিং স্টেশনে গিয়ে তিনি পেট্রল পাননি। মোটরসাইকেল রেখে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় চলাচল করছেন।

তিন দিন ধরে পেট্রলের সংকটের কারণে রাজশাহীতে অকটেনের বিক্রি বেড়ে গেছে। এখন অকটেনেও টান পড়েছে। অনেক মোটরসাইকেলচালক অকটেনও পাচ্ছেন না।

রাজশাহীর মেসার্স আফরিন ফিলিং স্টেশনের ব্যবস্থাপক সোলাইমান কবির বলেন, ‘চাহিদা অনুযায়ী আমরা ডিপোয় সরবরাহ পাচ্ছি না। এ জন্যই গ্রাহককে দেওয়া যাচ্ছে না। ঈদে চাহিদা বেড়েছে। আবার সরবরাহে ঘাটতি আছে। ঈদের আগে অকটেনের সংকট ছিল না। কিন্তু ঈদের পর অকটেনেরও সংকট দেখা দিয়েছে।’

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে অবস্থিত রেলহেড অয়েল ডিপোতেও পেট্রল ও অকটেনের মজুত কমে গেছে। ফলে উত্তরাঞ্চলের আট জেলায় পেট্রল ও অকটেনের সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। ওই ডিপোতে দৈনিক পেট্রলের চাহিদা ১ লাখ ৮০ হাজার লিটার। বর্তমানে প্রতি সপ্তাহে মাত্র ১ লাখ ৮০ হাজার লিটার ডিপোতে পেট্রল সরবরাহ দেওয়া হচ্ছে।

পার্বতীপুরের মেঘনা রিয়েল ফিলিং স্টেশনের ব্যবস্থাপক মো. নুরুল নবী জানান, ঈদের কয়েক দিন আগেই পেট্রল ও অকটেন সংকট চরমে পৌঁছেছে। ক্রেতাদের জ্বালানি সরবরাহ করা যাচ্ছে না। গত ২৮ এপ্রিল ৯ হাজার লিটার পেট্রল ও ৪ হাজার ৫০০ লিটার অকটেন এসেছিল। সেগুলো বিকেলের মধ্যেই শেষ হয়ে যায়। তিনি আরও জানান, প্রতিদিন এ পাম্পে সাড়ে ৩ হাজার লিটার পেট্রল ও ১ হাজার ৩০০ লিটার অকটেন প্রয়োজন পড়ে।

ঈদের কয়েক দিন আগেই পেট্রল ও অকটেন সংকট চরমে পৌঁছেছে। ক্রেতাদের জ্বালানি সরবরাহ করা যাচ্ছে না।
মো. নুরুল নব ব্যবস্থাপক, পার্বতীপুরের মেঘনা রিয়েল ফিলিং স্টেশন

এ ছাড়া পঞ্চগড় ও নীলফামারীর ফিলিং স্টেশনগুলোয় পেট্রল, অকটেনের সংকট দেখা গেছে। পঞ্চগড়ে কিছু ফিলিং স্টেশনে অল্প পরিমাণে অকটেন থাকলেও তা দ্রুত শেষ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন পাম্পমালিকেরা।

তবে ঠাকুরগাঁওয়ের ফিলিং স্টেশনগুলোয় জ্বালানি তেলের সংকট আপাতত কেটেছে। গত তিন দিন জেলার বেশির ভাগ ফিলিং স্টেশনে পেট্রল ও অকটেন বিক্রি বন্ধ ছিল। গতকাল ফিলিং স্টেশনগুলো পার্বতীপুর ও বাঘাবাড়ী ডিপো থেকে পেট্রল ও অকটেন পাওয়ায় সে সংকট খানিকটা কেটেছে। ফিলিং স্টেশনগুলোয় জ্বালানি তেল এসে পৌঁছার খবরে ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরসাইকেলের চালকেরা সেখানে ভিড় করেন।

গতকাল বেলা দুইটার দিকে ঠাকুরগাঁও শহরের মির্জা ফিলিং স্টেশন, সুপ্রিয় ফিলিং স্টেশনে গিয়ে ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরসাইকেলের দীর্ঘ সারি দেখা যায়। বিক্রয়কর্মীরা চালকদের চাহিদামতো জ্বালানি তেল সরবরাহ করছেন।

[প্রতিবেদন তৈরিতে সহায়তা করেছেন নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর; প্রতিনিধি, ঠাকুরগাঁও, গাইবান্ধা, নীলফামারী, রাজশাহী, পঞ্চগড় সৈয়দপুর (নীলফামারী)]

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন