বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী নিলুফা ইয়াসমিন বলেন, ‘মনে হচ্ছে যেন এক নতুন জায়গায় এসেছি। প্রিয় ক্যাম্পাস আর প্রাণের হলে আসতে পেরে আমার কী যে আনন্দ লাগছে। বন্ধুদের দেখা হচ্ছে। একে অপরকে জড়িয়ে ধরছি।’ একই অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন জান্নাতুল ফেরদৌস নামের আরেক ছাত্রী।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের শিক্ষার্থী বায়েজিদ বোস্তামি বলেন, ‘এটা ভাবতেই পারছি না যে এত দিন পর আবার হলে ফিরে এসেছি। সেই হলের বিছানায় আজ ঘুমাতে পারব। বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডায় মেতে উঠব। ইতিমধ্যে আমাদের মধ্যে একটা অন্য রকম উৎসব শুরু হয়ে গেছে।’

শহীদ মুখতার ইলাহী হলেও একইভাবে ফুল দিয়ে শিক্ষার্থীদের বরণ করে নেওয়া হয়েছে। দীর্ঘদিন পর দেখা হওয়ায় শিক্ষার্থীরা একে অপরকে জড়িয়ে ধরছেন। করছেন মিষ্টিমুখ। এ যেন অন্য রকম উৎসব। পুরোনো জায়গায় নতুন করে ফিরে আসার আনন্দ।

default-image

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ আলী বলেন, শনিবার রাতে হল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সশরীর ক্লাস পরীক্ষা চালু হবে ১১ নভেম্বর। এ জন্য সব প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

সহ–উপাচার্য সরিফা সালোয়া বলেন, তিনটি হল খুলে দেওয়ার আগে সব কক্ষ, বাথরুম, হলের চারপাশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে বসবাসের উপযোগী করা হয়েছে। শিক্ষার্থীরা দলে দলে এসে হলে উঠছেন। সব শিক্ষার্থীকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে।
করোনা মহামারির কারণে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রম ও আবাসিক হল বন্ধ ঘোষণা করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তবে সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, অনলাইন ক্লাস ও পরীক্ষা চালু ছিল।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন