default-image

৩২ বছর আগে ১১ সেপ্টেম্বর সকাল ছয়টায় মেছের আলী প্রাতর্ভ্রমণে বেরিয়েছিলেন। এমন সময় মালবোঝাই দ্রুতগতির একটি ট্রাক তাঁকে আঘাত করে চলে যায়। স্থানীয় লোকজন যখন টের পায়, তখন মেছের আলী আর জীবিত ছিলেন না। ঠিক একই তারিখে, একই সময়ে ওই সড়কে আজ শুক্রবার তাঁর স্ত্রী রোকেয়া খাতুন (৬৫) দ্রুতগতির একটি পিকআপ ভ্যানের আঘাতে মারা যান।
মেহেরপুর সদর উপজেলার মদনাডাঙ্গা গ্রামের মেহেরপুর-কুষ্টিয়া মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় লোকজন জানান, রোকেয়া খাতুন দীর্ঘদিন ধরে ডায়বেটিসে ভুগছিলেন। আর এ কারণে প্রতিদিন সকাল ছয়টায় তিনি হাঁটতে বের হতেন। আজ সকালে তিনি বাড়ি থেকে বের হয়ে কুষ্টিয়া-মেহেরপুর মহাসড়কে উঠতেই দ্রুতগতির একটি পিকআপ ভ্যান তাঁকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু ঘটে।

বিজ্ঞাপন

রোকেয়া খাতুনের ভাতিজা মুনতাজ আলী বলেন, ‘ফুফা মারা যাওয়ার পরে ফুফু তাঁর দুই সন্তানকে নিয়ে থাকতেন। সন্তান মানুষ করার জন্য দ্বিতীয় বিয়ে করেননি। তাঁদের সংসার মোটামুটি চলে যেত। কয়েক বিঘা জমি ছিল, যা তিনি লোক দিয়ে আবাদ করাতেন। একই দিনে, একই স্থানে তাঁদের মৃত্যু নিয়ে এলাকায় গুঞ্জন চলছে। এ কারণে তাঁকে দেখতেও বাড়িতে ভিড় লেগেছে।’

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ দারা খান বলেন, খবর পাওয়া মাত্র পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। ওই পিকআপ ভ্যানের খোঁজ চলছে। পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করতে চাইলে পুলিশ মামলা নেবে।

মন্তব্য পড়ুন 0