বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গতকাল রোববার রংপুরের বিভিন্ন পাড়া–মহল্লায় সরেজমিনে আরও কয়েকজন গৃহিণী একই রকম কথা বলেন। গ্যাসের স্থানীয় ডিলার, খুচরা বিক্রেতা ও ব্যবহারকারীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রংপুরের খুচরা বাজারে গতকাল প্রতি সিলিন্ডার টোটাল গ্যাস বিক্রি হয়েছে ১ হাজার ৩২০ টাকায়, যমুনা ১ হাজার ৩০০, বসুন্ধরা ১ হাজার ২৯০ ও বেক্সিমকো ১ হাজার ৩০০ টাকায়। এক মাস আগেও এসব প্রতিষ্ঠানের সিলিন্ডার ২০০ টাকা কমে বিক্রি করা হয়েছে।

শহরের কেরানীপাড়ার বাসিন্দা রুবিনা আক্তারের ভাষ্য, গ্যাসের দোকানে ফোন করলে বলে, ‘ভাবি, গ্যাসের দাম কিন্তু আবার বেড়েছে, শুনছি আবার বাড়বে।’ এমন কথা নিয়মিত শুনতে হয়। তাই খরচ কমাতে দিনে একবার রান্না করে রাখা হচ্ছে।

যমুনা ও টোটাল গ্যাসের স্থানীয় ডিলার পাভেল রহমান জানান, তিনি গ্যাস নিয়ে আসেন ঢাকা থেকে। সেখানেই দাম বাড়ানো হচ্ছে। এ ছাড়া ঢাকা থেকে এলাকায় নিয়ে আসতে পরিবহন খরচও আছে। এ কারণে ঢাকায় গ্যাসের দামের তুলনায় রংপুরে গ্যাসের দাম কিছুটা বেশি পড়ে। ক্রেতারা এটি বুঝতে চান না।

সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)–এর রংপুর মহানগর কমিটির সভাপতি খন্দকার ফখরুল আনাম বলেন, সরকার নিয়ন্ত্রিত বন্ধ হয়ে যাওয়া এলপি গ্যাস পুনরায় চালু করা দরকার। প্রয়োজনে রেশনিং পদ্ধতিতে গ্যাস সরবরাহ করা যেতে পারে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন