আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত উপজেলায় মুঠোফোনের নেটওয়ার্ক পুরোপুরি সচল হয়নি। কেবল শহরের একটি অংশে আংশিক নেটওয়ার্ক পাওয়া যায়। বিদ্যুৎ–সংযোগ ও নেটওয়ার্ক না থাকায় অনলাইন ব্যাংকিং সেবাও বন্ধ রয়েছে। ফলে চরম সংকটে পড়েছেন সেখানকার বাসিন্দারা।

জগন্নাথপুর পৌর এলাকার জগন্নাথপুর গ্রামের বাসিন্দা প্রবীণ সাংবাদিক শংকর রায় বলেন, এমন বিপর্যয় আগে কখনো দেখেননি তিনি। ১৯৮৮ ও ২০০৪ সালের ভয়াবহ বন্যায়ও এত দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকতে দেখেননি। তিনি বলেন, বিদ্যুৎ ও মুঠোফোন নেটওয়ার্ক না থাকায় জগন্নাথপুরের ভয়াবহ বন্যার খবরও পাঠাতে পারছেন না তাঁরা।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর জগন্নাথপুর উপজেলা কার্যালয়ের অফিস সহকারী ধীরেন্দ্র সূত্রধর বলেন, জুনে কাজের অনেক চাপ। কার্যালয়ে বন্যাকবলিত মানুষ আশ্রয় নিয়েছে। বিদ্যুৎ না থাকায় বিপাকে পড়েছে সবাই।

জগন্নাথপুর উপজেলা বিদ্যুৎ কার্যালয়ের আবাসিক প্রকৌশলী আজিজুল ইসলাম বলেন, বন্যার পানিতে সিলেট ও জগন্নাথপুর উপজেলার বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে পানি ঢুকে পড়ায় বিদ্যুৎ–সংযোগ বন্ধ ছিল। এখন পানি কমতে শুরু করেছে। শহরের কিছু এলাকায় আজ বৃহস্পতিবার থেকে বিদ্যুৎ-সংযোগ চালুর চেষ্টা করছেন তাঁরা।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন