বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আরও বলেন, ‘দেশ স্বাধীন করে আমরা যে সাম্প্রদায়িক রাজনীতি বন্ধ করেছিলাম, জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে বললেন ধর্মভিত্তিক রাষ্ট্র চলবে। আবার সেই ধর্মীয় রাজনীতি শুরু করলেন। গোলাম আযমকে এনে নাগরিকত্ব ফেরত দিলেন। মুক্তিযুদ্ধের প্রত্যক্ষ বিরোধিতাকারী মশিউর রহমান যাদু মিয়াকে সিনিয়র মন্ত্রী বানালেন। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে যাঁরা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এলেন, তাঁরা জয় বাংলা স্লোগান নিষিদ্ধ করলেন। যুদ্ধের যে হুংকার, যে রণধ্বনি, যে ধ্বনিতে আমরা পাকিস্তানিদের পরাজিত করেছিলাম, খুনি জিয়া, খুনি মোশতাক চক্র স্বাধীন বাংলাদেশকে মিনি পাকিস্তান বানানোর জন্য পাকিস্তানি কায়দায় বাংলাদেশ জিন্দাবাদ চালু করলেন।’ বক্তৃতা শেষে নীলফামারী জেলার স্মৃতিকথা নিয়ে ‘রণাঙ্গনে বীর বাঙালি’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী।

default-image

উদ্বোধনী সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো. হাফিজুর রহমান চৌধুরী। বক্তৃতা দেন নীলফামারী-২ সদর আসনের সাংসদ আসাদুজ্জামান নূর, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সাংসদ রাবেয়া আলীম, সাবেক সাংসদ জোনাব আলী, সাবেক সাংসদ শামসুদ্দোহা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ এস এম মোক্তারুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মো. হাফিজুর রশীদ, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহিদ মাহমুদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন নাহার, সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার সহিদুল ইসলাম, ডেপুটি কমান্ডার কান্তি ভূষণ কুণ্ডু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুজার রহমান, সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদ রহমান প্রমুখ।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় সাংসদ আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘আমার ভাবতে অবাক লাগে। আমরা তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। লেখাপড়া করি, আন্দোলন করি, সংগ্রাম করি, রাজনীতি বুঝি, দেশ কী, দেশপ্রেম কী বুঝি। কিন্তু আমাদের গ্রামের নিরক্ষর কৃষকের সন্তান ১৬ বছর, ১৮ বছর, ২০ বছর বয়স—একটা থ্রি নট থ্রি রাইফেল নিয়ে একটা লুঙ্গি পরে আর একটা গেঞ্জি পরে কি অসাধারণ সাহসের সঙ্গে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সঙ্গে লড়ে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছেন।’

আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘আজকে দেশ স্বাধীন হয়েছে, কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে আমরা হারিয়েছি। যারা এই দেশের স্বাধীনতার শত্রু ছিল, তারা দেশি–বিদেশি চক্রের সঙ্গে চক্রান্ত করে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে। তারা মনে করেছে, বঙ্গবন্ধু এবং তাঁর পরিবারকে হত্যা করতে পারলে এই বাংলাদেশকে আবার পাকিস্তান বানানো যাবে। কিন্তু তাদের যে ষড়যন্ত্র, তাদের যে অপকৌশল, তাদের যে কুৎসিত উদ্দেশ্য, সেটি সফল হয়নি। বাংলাদেশের মানুষ বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আবারও ঘুরে দাঁড়িয়েছে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন