বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন ইউএস-বাংলার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন, নীলফামারীর জেলা প্রশাসক মো. হাফিজুর রহমান চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান, সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোখছেদুল মোমিন, সৈয়দপুর পৌর মেয়র রাফিকা আকতার জাহান প্রমুখ।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী সৈয়দপুর বিমানবন্দরের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। তাঁরা এই বিমানবন্দর ব্যবহার করতে চান। অনুরূপভাবে প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে সৈয়দপুর বিমানবন্দরকে কার্যকর করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সৈয়দপুর বিমানবন্দরকে হাব হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে। এর পাশাপাশি অন্যান্য বিমানবন্দর রানওয়ে সম্প্রসারণসহ নানা উন্নয়নমূলক কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘নীলফামারী-সৈয়দপুর সড়কের পাশের অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আমি উপভোগ করেছি। এসব দৃশ্য পর্যটককে আকৃষ্ট করবে। চট্টগ্রামের সঙ্গে এই অঞ্চলের যোগাযোগ স্থাপিত হওয়ায় আরও সমৃদ্ধ হয়ে উঠবে সৈয়দপুর।’

ইউএস-বাংলার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, আর্থসামাজিক বিকাশে সৈয়দপুর-চট্টগ্রাম আকাশপথ অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। ভবিষ্যতে পর্যটনশিল্পের উন্নয়নে সৈয়দপুর-কক্সবাজার রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করবে ইউএস-বাংলা।

পুরো অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন জনপ্রিয় উপস্থাপক মৌসুমি মৌ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সিভিল এভিয়েশনের কর্মকর্তা, সুধীজনেরা উপস্থিত ছিলেন। পরে প্রধান অতিথি ফিতা কেটে সৈয়দপুর-চট্টগ্রাম ফ্লাইটের উদ্বোধন করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন