বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মানববন্ধনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, সাধারণ মানুষের যাতায়াতের সুবিধার জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ অনেকখানি জায়গা ছেড়েও দিয়েছে। এরপরও রাতের আঁধারে কলেজ কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে মাঠের সীমানা ভেতরে নর্দমা করার নামে বিরাট খাল খনন করা হয়েছে। অবিলম্বে বিষয়টির সমাধান করা না হলে সিলেটের সর্বস্তরের মানুষকে নিয়ে আন্দোলনে নামার ঘোষণা দেন তাঁরা।

এদিকে মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়রের গাড়ি ওই সড়কে দিয়ে যাওয়ার সময় আটকে দেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী শিক্ষার্থীদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে অবিলম্বে ওই নর্দমাটি ভরাট করার প্রতিশ্রুতি দেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন কলেজের শিক্ষার্থী রাসেল আহমেদ, সৌরভ দাস, শামীম আলী, রুবেল আহমেদ, দেলোয়ার হোসেন, রুহেল আহমেদ, আহমেদ শিহাব, রুখন, ইমরান, সায়েম, শাব্বির শুভ, আপন, পল্লবী দাস প্রমুখ।

জানতে চাইলে এমসি কলেজের অধ্যক্ষ মো. সালেহ আহমদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘সিলেট সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ কলেজের কোনো অনুমতি না নিয়েই মাঠে নর্দমার নামে খাল খনন করে ফেলেছেন। অনেকটা রাতের আঁধারে তাঁরা কাজটি করেছেন। বিষয়টি সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষসহ জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিতভাবে জানিয়েছি। এ বিষয়ে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সঙ্গে আলোচনাও হয়েছে। তিনি বলেছেন, বর্তমানে সিটি করপোরেশনের যন্ত্রগুলো অন্যান্য কাজে ব্যস্ত। শিগগিরই মাঠের খনন করা অংশটি ভরাট করে দেওয়া হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন