বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সখীপুর পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের গড়গোবিন্দপুর চটানপাড়া জামে মসজিদের তহবিল বৃদ্ধির লক্ষ্যে আগামীকাল সোমবার ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে টাঙ্গাইল-৮ (সখীপুর-বাসাইল) আসনের সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা জোয়াহেরুল ইসলামের নাম রয়েছে। ওয়াজ মাহফিলের আমন্ত্রণপত্রের প্রতিটি চিঠিতে প্রধান অতিথি ও ধর্মীয় বক্তাদের নাম ঠিক রেখে শুধু বিশেষ অতিথির নামের স্থলে পৃথক ৪০ জনের নাম লিখে ৪০ রকমের চিঠি করা হয়েছে। ইতিমধ্যে ওই সব আমন্ত্রণপত্র বিলিও করা হয়েছে।

কয়েকটি আমন্ত্রণপত্র ঘেঁটে দেখা যায়, ৪০টি পত্রের প্রতিটিতে প্রধান অতিথি ও ধর্মীয় বক্তাদের নাম ঠিক রাখা হয়েছে। পাশাপাশি ৪০ জনের একেকজনের নাম দিয়ে পৃথক ৪০টি আমন্ত্রণপত্র ছাপা হয়েছে।

কয়েক দিনে ওই সব আমন্ত্রণপত্র অতিথিদের কাছে পৌঁছালে বিষয়টি জানাজানি হয়ে যায়। শুরু হয় আলোচনা-সমালোচনা।

আমন্ত্রণপত্র ছাপানোর কারখানার মালিক আমন্ত্রণপত্রের ২৮ সংস্করণ করার কথা স্বীকার করে শুক্রবার প্রথম আলোকে বলেন, এই আমন্ত্রণপত্র দিয়ে সাময়িকভাবে কাউকে খুশি করা গেলেও এটা একধরনের সূক্ষ্ম প্রতারণা।

উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি ও হাতিয়া ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ রহিজ উদ্দিন বলেন, ‘আমার চিঠিতেও এমপি সাহেবের নামের পর বিশেষ অতিথি হিসেবে শুধু আমার নাম লেখা হয়েছে। এতে আমি খুশি হয়েছিলাম। পরে জানতে পারি, এভাবে আমার মতো আরও ৩৯ জনকে আলাদা করে বিশেষ অতিথি করা হয়েছে।’

সখীপুর আবাসিক মহিলা কলেজের বাংলা বিভাগের প্রধান মুহম্মদ আবদুল আলীম প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমাকেও বিশেষ অতিথি করা হয়েছে। এ রকম চিঠি দেখে আমারও সন্দেহ হয়েছিল। পরে জানতে পারি, আমার মতো আরও অনেককে এভাবেই চিঠি দেওয়া হয়েছে।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন বিশেষ অতিথি বলেন, ‘প্রথমে চিঠিটি পেয়ে বেশ খুশি হয়েছিলাম। মনে মনে ভেবেছিলাম, এমপি সাহেবের পরই যেহেতু আমার নাম বিশেষ অতিথির তালিকায় রাখা হয়েছে, তাই বেশি করে টাকা দেব। পরে মনটা খারাপ হয়ে যায়। এখন আগের মতো টাকা দেব না।’

গড়গোবিন্দপুর চটানপাড়া জামে মসজিদ কমিটির কয়েকজন বলেন, মসজিদের উন্নয়নের জন্য অতিথিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে বাড়তি টাকা আদায়ের কৌশল হিসেবেই এভাবে পত্র তৈরি করা হয়েছে।

মসজিদ কমিটির সভাপতি ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আহাম্মদ আলী মিয়া বলেন, ‘আমাদের উদ্দেশ্য সৎ। একই চিঠিতে ৪০-৫০ জনের নাম লেখা সম্ভব নয়। তাই সবাইকে খুশি করতে ও অতিথিদের মর্যাদা বাড়াতে এমনটি করা হয়েছে। এটা নিয়ে সমালোচনা করার তো কিছু নেই। এখানে আমার ব্যক্তিগত কোনো স্বার্থ নেই। মসজিদের উন্নয়নেই এ ধরনের চিঠি করা হয়েছে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন