default-image

কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতের লাবণী পয়েন্টের পাশে জেলা পরিষদের ফুলের বাগান। গত শুক্রবার ভোরে বাগানে ঢোকে নয় বছর বয়সী এক মেয়ে পথশিশু। সেখানে শিশুটিকে তিন তরুণ মিলে ধর্ষণ করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গ্রেপ্তার তিন তরুণ হলেন কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার গোয়াখালী এলাকার মো. আরিফ, উখিয়ার রোহিঙ্গা শিবিরের মো. রাশেদ ও মোহাম্মদ জুয়েল। তাঁরা তিনজন ছিনতাইকারী বলে জানায় পুলিশ।

শিশুটি কক্সবাজার শহরের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘নতুন জীবন’-এর সদস্য। সংগঠনটি সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের কল্যাণে কাজ করে। এ ঘটনায় নতুন জীবনের সদস্য মো. জোবাইর হোসেন বাদী হয়ে তিন ছিনতাইকারী তরুণের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

বিজ্ঞাপন

‘নতুন জীবন’ সংগঠনের সভাপতি ওমর ফারুক বলেন, নয় বছরের মেয়েটি আহত অবস্থায় তাঁর কাছে বিষয়টি জানায়। শিশুটির কেউ নেই, ভবঘুরে। তাঁদের সংগঠনে এ রকম দুই শতাধিক পথশিশু আছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গ্রেপ্তার তিন তরুণ পেশাদার ছিনতাইকারী। সৈকত ভ্রমণে আসা পর্যটকদের কাছ থেকে মালামাল ছিনতাইয়ের পাশাপাশি ইয়াবাসহ মাদকদ্রব্য বিক্রির সঙ্গে জড়িত। তাঁদের বিশাল সিন্ডিকেট আছে।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বিপুল চন্দ্র দে প্রথম আলোকে বলেন, শুক্রবার ভোরে লাবণী পয়েন্টের পাশে বাগানের ভেতরে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। পরে সৈকতের সি-গাল, সুগন্ধা পয়েন্ট ও লাইট হাউস এলাকায় অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত তিন ছিনতাইকারী তরুণকে গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল শনিবার গ্রেপ্তার তিনজনকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চার দিনের রিমান্ড চেয়ে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আবেদন করা হয়েছে। আর মেয়েশিশুটিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন