default-image

কক্সবাজারের রামুর রাবারবাগান এলাকায় র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দেলোয়ার হোসেন (২৮) নামের একজন নিহত হয়েছেন। তাঁর বাড়ি টেকনাফ পৌরসভার উত্তর জালিয়াপাড়ায়। তাঁর বাবার নাম কালা মিয়া। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কাছে রাবারবাগানের ভেতরে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

র‍্যাবের দাবি, নিহত দেলোয়ার হোসেন মাদক কারবারি। ঘটনাস্থল থেকে র‍্যাব ৩ লাখ ৯৪ হাজার ইয়াবা ও একটি দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেছে।

প্রথম আলোকে এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন র‍্যাব-৭ চট্টগ্রামের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. মশিউর রহমান জুয়েল।

রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম আজমিরুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, গুলিতেই দেলোয়ারের মৃত্যু হয়েছে। তাঁর বুকসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে একাধিক গুলির দাগ রয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বিজ্ঞাপন

র‍্যাব-৭ চট্টগ্রামের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. মশিউর রহমান বলেন, গতকাল বিকেলে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া এলাকা থেকে দেলোয়ার হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁর দেওয়া তথ্যমতে র‍্যাবের একটি দল দেলোয়ারকে নিয়ে কক্সবাজারের রামুর রাবারবাগান এলাকায় অভিযানে যায়। এ সময় দেলোয়ারের সহযোগীরা তাঁকে ছিনিয়ে নিতে র‍্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে থাকে। আত্মরক্ষার্থে র‍্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। উভয় পক্ষের গোলাগুলিতে দেলোয়ারের মৃত্যু হয়েছে। পরে রামু থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে।

২০১৮ সালের ৪ মে থেকে সারা দেশে মাদকবিরোধী অভিযান শুরু হয়। গতকাল পর্যন্ত চারজন নারীসহ শুধু কক্সবাজার জেলায় ২৭৭ জন বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন