default-image

চাঁদপুরের কচুয়ায় শ্বাসরোধে স্ত্রী লাভলী আক্তারকে (২২) হত্যার অভিযোগে করা মামলায় স্বামী শাহাদাত হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ বুধবার কচুয়া থানার পুলিশ তাঁকে চাঁদপুরের আদালতে সোপর্দ করে। তিনি ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেওয়ার পর তাঁকে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

কচুয়া থানার পুলিশ জানায়, কচুয়া উপজেলার সহদেবপুর গ্রামের মোকসুদ আলীর মেয়ে লাভলী আক্তারের সঙ্গে পাঁচ বছর আগে একই উপজেলার মনপুরা গ্রামের আবদুল মান্নানের ছেলে শাহাদাত হোসেনের বিয়ে হয়। এরপর থেকে তাঁরা ঢাকায় থাকতেন। কয়েক মাস ধরে তাঁদের মধ্যে ঝগড়াঝাঁটি চলছিল। গত রোববার লাভলী ঢাকা থেকে বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন। ওই সন্ধ্যায় লাভলীর মা খোশনেয়ারা বেগম তাঁর মোবাইল নম্বরে ফোন দিয়ে অবস্থান জানতে চাইলে তিনি কচুয়া উপজেলার সাচার বাজার এলাকায় আছেন বলে জানান। এটা বলার সঙ্গে সঙ্গে মোবাইল বন্ধ হয়ে যায়। এরপর কয়েকবার চেষ্টা করেও তাঁর মোবাইল ফোনে সংযোগ পাওয়া যায়নি।

বিজ্ঞাপন

পরদিন সোমবার সকালে স্থানীয় লোকজন লাভলীর মৃতদেহ কচুয়া উপজেলার বাচাইয়া ব্রিকফিল্ডের দক্ষিণ পাশে একটি মাঠে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অজ্ঞাত লাশ হিসেবে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যাওয়ার পর নিশ্চিত হয়, এটি লাভলীর লাশ। গতকাল মঙ্গলবার পুলিশ তাঁর স্বামী শাহাদাত হোসেনকে আটক করলে জিজ্ঞাসাবাদে তিনি স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার কথা স্বীকার করেন।

কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মহিউদ্দিন বলেন, শাহাদাত আগে বিয়ে করেছিলেন। সেই সংসারে তাঁর একটি বাচ্চা আছে। তিনি বিষয়টি লাভলীর কাছে গোপন রাখেন। এ নিয়ে ঝগড়ার জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটে। এ ঘটনায় গতকাল লাভলীর মা বাদী হয়ে কচুয়া থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন