default-image

বাল্যবিবাহের খবর পেয়ে কনের বাড়িতে অভিযান চালান ভ্রাম্যমাণ আদালত। কিন্তু আদালতের সামনে আনা হয় কনের বড় বোনকে। পরে ধরা পড়ে প্রকৃত ঘটনা। বাল্যবিবাহের কারণে কারাদণ্ড দেওয়া হয় কনের বাবা, ভাই ও বরকে।

ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল সোমবার রাতে চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়নের একটি গ্রামে। সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিজানুর রহমান।

ইউএনও জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কনের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। বিয়ের তেমন কোনো আয়োজন ছিল না। জিজ্ঞাসাবাদে কনের বাবা জানান, এখানে কোনো বিয়ে হয়নি। কনে দেখতে এসেছে বরপক্ষ। কিশোরী কনেকে (১৫) লুকিয়ে রেখে তাঁর বড় বোনকে (২০) আদালতের সামনে আনা হয়। কিন্তু খোঁজখবর নিয়ে জানা যায়, কিছুক্ষণ আগেই বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। তখন কনের বাবা ও বরের বড় ভাইকে ছয় মাস এবং বরকে (১৮) এক মাসের বিনা শ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। বিয়ের নিবন্ধক (কাজি) ও বরের এক ভাই পালিয়ে যান। পরে তাঁদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে প্রশাসন নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছে। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজ প্রথম আলোকে বলেন, করোনাকালে জেলায় অসংখ্য বাল্যবিবাহ সংঘটিত হয়েছে। এ ক্ষেত্রে দ্বিতীয় অবস্থান থেকে শীর্ষে চলে এসেছে এই জেলা। এখন থেকে বাল্যবিবাহে শূন্য সহনশীলতা দেখিয়ে কঠোর অবস্থানে থাকবে প্রশাসন। এ জন্য বহুমুখী পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0