বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নদ খনন প্রকল্পের আওতায় ১১ জন ঠিকাদারের মাধ্যমে চৌগাছার তাহেরপুর থেকে ঝিকরগাছা হয়ে মনিরামপুরের চাকলা পর্যন্ত মোট ৭৯ কিলোমিটার নদ পুনঃখনন করা হবে। ২০২১ সালের ১ আগস্ট থেকে খনন কাজ শুরু হওয়ার কথা থাকলেও পানি বেশি থাকায় সম্ভব হয়নি। সম্প্রতি শুরু হওয়া প্রকল্পের মেয়াদ ধরা হয়েছে ২০২৩ সালের ২ জুন পর্যন্ত। যার চুক্তিমূল্য ৪ কোটি ৪৫ লাখ ৭৯ হাজার ৯০৭ টাকা। খননের গড় প্রস্থ প্রায় ৪৫ দশমিক ৫৫ মিটার এবং গড় গভীরতা ১ দশমিক ৪০ মিটার। এ ছাড়া খননের তলা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫ মিটার।

default-image

কপোতাক্ষ বাঁচাও আন্দোলন কমিটি সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার ঝিকরগাছার আন্দোলন কমিটির পক্ষ থেকে কাটাখালী থেকে মাগুরা পর্যন্ত পাঁচ কিলোমিটার নদ পরিদর্শন করা হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কপোতাক্ষ বাঁচাও আন্দোলনের ঝিকরগাছা কমিটির আহ্বায়ক আবদুর রহিম, সদস্য রবিউল ইসলাম, শিক্ষক ইলিয়াস উদ্দীন ও বিমল ঘোষ, সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম, আতাউর রহমান, আফজাল হোসেন, সোহানুর রহমান প্রমুখ। এই নদের উৎপত্তি চুয়াডাঙ্গা জেলার মাথাভাঙ্গা নদী থেকে। পরে নদটি যশোরের চৌগাছা উপজেলায় ভৈরব ও কপোতাক্ষ দুটি শাখায় বিভক্ত হয়ে খুলনার পাইকগাছা উপজেলার কাছে শিবসা নদীতে গিয়ে পতিত হয়েছে।

পরিদর্শন শেষে কমিটির উপদেষ্টা ইকবাল কবির বলেন, নদ খনন প্রকল্প এলাকায় কোনো সাইনবোর্ড স্থাপন করা হয়নি। যে কারণে প্রকল্প সম্পর্কে মানুষ কিছুই জানতে পারছে না। জাতীয় সংসদে আইন প্রণয়ন করে ১৯২৬ ও ১৯৬২ সাল অনুযায়ী নদ সম্পদ উদ্ধার ছাড়া এসব নদ বাঁচানো যাবে না।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন