default-image

দুর্বৃত্তদের হামলায় কবজি কর্তন হওয়া পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলা শ্রমিক লীগের সহসভাপতি মো. জুয়েল প্যাদা (৩৫) মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে একটার দিকে ঢাকার বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।
জুয়েলের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তাঁর চাচাতো ভাই ও সাবেক ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিন প্যাদা।
উপজেলার টিয়াখালী ইউনিয়নের তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রমুখী ছয় লেন সড়ক এলাকার হাসন আলী হাওলাদার বাড়ির কাছে ৪ নভেম্বর রাত সাড়ে ৮টার দিকে ৯-১০ জন মুখোশধারী দুর্বৃত্ত জুয়েলের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। তারা এলোপাতাড়ি তাঁকে মারতে থাকে। একপর্যায়ে ছয় লেন সড়কের ওপর তিনি পড়ে গেলে তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাঁর বাঁ হাতের কবজি কেটে ফেলে। পরে দুর্বৃত্তরা উল্লাস করতে করতে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়।
জুয়েল প্যাদাকে প্রথমে কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এরপর তাঁকে বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। তবে তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁকে দ্রুত ঢাকায় জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতালে) নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে নেওয়া হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সর্বশেষ বারডেম হাসপাতালে ভর্তি করে তাঁর চিকিৎসা চলছিল।

বিজ্ঞাপন

এ ঘটনার পর জুয়েলের বাবা মো. ফারুক প্যাদা বাদী হয়ে ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে কলাপাড়া থানায় একটি মামলা করেন। এতে অজ্ঞাতনামা আরও চার-পাঁচজনকে আসামি করা হয়। পুলিশ ৪ নভেম্বর দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে বশির চৌকিদার ও সোহেল হাওলাদার নামের দুজনকে বরগুনার আমতলী উপজেলার পূজাখোলা গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করে। এ সময় পুলিশ এই দুজনের কাছ থেকে হামলার কাজে ব্যবহৃত একটি ছুরি ও একটি চাপাতি উদ্ধার করে।
মো. ফারুক প্যাদা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমার পোলাডারে বাঁচাইতে পারলাম না। অর হাতটা কাইটা নেওনে ও মারা গেল। যেসব আসামি ধরা পড়ে নাই, তাঁদের দ্রুত গ্রেপ্তার করার দাবি জানাই। এই অপরাধে জড়িতদের যেন দৃষ্টান্তমূলক বিচার হয়।’
জুয়েলের ওপর হামলার ঘটনার পর পটুয়াখালীর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান তাঁর কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন। সে সময় তিনি জানান, জুয়েল প্যাদা এলাকায় জমির দালালি করেন। জমিজমা–সংক্রান্ত বিরোধ ও অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জেরে অজপাড়ার নির্জন ও দুর্গম কাঁচা রাস্তায় একাকী পেয়ে জুয়েলের ওপর হামলা করা হয়। জুয়েলের বিরুদ্ধে পটুয়াখালী সদর, কলাপাড়া ও বরগুনার আমতলী থানায় অস্ত্র, খুনসহ বিভিন্ন অপরাধে আটটি মামলা রয়েছে।
জুয়েলের চাচাতো ভাই জসিম উদ্দিন প্যাদা বলেন, সুচালো চলের কোপে তাঁর বাঁ পাশের কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ কারণে তাঁকে বারডেম হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা করা হচ্ছিল। শুক্রবার বাদ আছর জানাজা শেষে তাঁকে কলাপাড়া উপজেলার টিয়াখালী ইউনিয়নের পূর্ব টিয়াখালী গ্রামে দাফন করা হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0