default-image

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় জেলা বিএনপির সভাপতি ও সরিষাবাড়ী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ফরিদুল কবির তালুকদার ওরফে শামীমের ওপর হামলা হয়েছে। রোববার বেলা দেড়টার দিকে উপজেলার মহাদান ইউনিয়নের বনগ্রাম রাজার মোড় এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। স্থানীয় বিএনপির দাবি, মহাদান ইউনিয়ন যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা এই হামলা চালিয়েছেন। হামলায় ৩৫টি মোটরসাইকেল ও একটি প্রাইভেট কার ভাঙচুর করা হয়েছে।

বিএনপির ভাষ্য, ফরিদুল কবির তালুকদার এক মাস ধরে ঢাকায় ছিলেন। এ সময় বিএনপির কয়েকজন নেতা-কর্মী মারা গেছেন। সরিষাবাড়ীতে এসে রোববার নেতা-কর্মীদের নিয়ে উপজেলার মহাদান ইউনিয়নের বনগ্রাম রাজার মোড় এলাকায় আবদুল কাশেমসহ বেশ কয়েকজনের কবর জিয়ারত করতে যান। ভাড়া করা প্রাইভেট কার ও নেতা-কর্মীদের মোটরসাইকেল সড়কের পাশে রেখে তাঁরা কবর জিয়ারত করছিলেন। এ সময় ইউনিয়নের যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা তাঁদের ওপর হামলা চালান।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে ফরিদুল কবির প্রথম আলোকে বলেন, ‘কবর জিয়ারত করে শান্তিপূর্ণভাবে ওই এলাকায় গিয়েছিলাম। কবর জিয়ারতের সময় হঠাৎ যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা হামলা চালিয়ে ৩৫টি মোটরসাইকেল ও একটি প্রাইভেট কার ভাঙচুর করেছেন। এ ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে মৌখিকভাবে জানিয়েছি। একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়া হবে।’

হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম বলেন, যুবলীগ এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয়। মহাদান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান বলেন, বিএনপির নেতা-কর্মীরা কবর জিয়ারতে যাওয়ার সময় কয়েকজনের সঙ্গে তর্ক–বিতর্ক হয়েছে। একপর্যায়ে মোটরসাইকেলে আঘাতের ঘটনা ঘটেছে।

সরিষাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফজলুল করিম প্রথম আলোকে বলেন, তাঁরা বিশাল বহর নিয়ে ওই এলাকায় অনুষ্ঠান করতে যাচ্ছিলেন কোনো ধরনের অনুমতি ছাড়াই। এ সময় এলাকাবাসী ও যুবলীগ-ছাত্রলীগ গিয়ে তাঁদের তিনটি মোটরসাইকেলে আঘাত করেছে। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক হয়েছে। এর বেশি কিছু ঘটেনি। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দিলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0