default-image

শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল চত্বরে করোনা টিকার নিবন্ধন বুথ উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ শুক্রবার সকালে জেলা প্রশাসক পারভেজ হাসান একজন স্বাস্থ্যকর্মীর নিবন্ধনের মাধ্যমে প্রথম সারির করোনাযোদ্ধাদের নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু করেন।

উদ্বোধনের সময় উপস্থিত ছিলেন সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মুনির আহমেদ খান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মনদীন ঘরাই, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে প্রমুখ।

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, রোববার থেকে জেলায় করোনার টিকা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু হবে। জেলায় ৩৬ হাজার টিকা দেওয়ার কার্যক্রম চলছে। অগ্রাধিকার পাওয়া ব্যক্তিদের পাশাপাশি ৫৫ বছরের বেশি বয়সের মানুষকে টিকা দেওয়া হবে। তাঁদের নিবন্ধন কার্যক্রম চলছে। নিবন্ধন ও টিকা দেওয়ার জন্য জেলা হাসপাতাল, পুলিশ হাসপাতাল, জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও ছয়টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। সেখানে কেন্দ্র প্রস্তুত করা হয়েছে। শুক্রবার পর্যন্ত সাড়ে তিন হাজার ব্যক্তির নিবন্ধন শেষ হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সদর উপজেলার চিতলিয়া ইউনিয়নের স্বাস্থ্যকর্মী মো. সোহাগ হোসেন করোনা রোগীদের চিকিৎসা, নমুনা সংগ্রহ করার কাজে নিয়োজিত ছিলেন। শুক্রবার তিনি করোনা টিকা নেওয়ার জন্য নাম নিবন্ধন করেছেন। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার সময় আতঙ্ক আর ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেছি। আস্তে আস্তে পরিবেশ স্বাভাবিক হয়। নিজেরাও সাহস পেয়েছি। একটি রুদ্ধশ্বাস সময়ের মধ্য দিয়ে স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে মানুষের পাশে থেকেছি। করোনার টিকা পেতে যাচ্ছি, নিবন্ধন করে বিজয়ের আনন্দ লাগছে।’

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, শরীয়তপুরে এ পর্যন্ত ১ হাজার ৮৯৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। তাঁদের মধ্যে ১ হাজার ৮৪৩ জন সুস্থ হয়েছেন। আর ২৩ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। বর্তমানে জেলায় ৩২ জন আক্রান্ত রোগী রয়েছে। জেলায় এ পর্যন্ত ৯ হাজার ৪৩৭ ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক পারভেজ হাসান বলেন, ‘করোনার যে যুদ্ধ আমরা শুরু করেছিলাম, টিকা প্রাপ্তির মধ্য দিয়ে তা শেষ হতে চলেছে। প্রথম দিকে আমরা শঙ্কায় ছিলাম কত মানুষকে টিকা দিতে পারব। এখন টিকা আমাদের হাতে মজুত, মানুষকে টিকা নিতে উদ্বুদ্ধ করছি, যাতে বিভ্রান্ত না হয়ে সবাই টিকা নিয়ে নিরাপদে থাকতে পারেন।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন