বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এযাবৎ ৬ কোটির বেশি ডোজ করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে। প্রতি মাসে টিকা দেওয়ার কার্যক্রম জোরদার করা হচ্ছে। এ মাসে আশা করছেন তিন কোটি ডোজ টিকা দিতে পারবেন। তিন কোটি ডোজ দিতে পারলে আরও দুই কোটি নতুন লোক টিকা পেয়ে যেতে পারেন। ২১ কোটি ভ্যাকসিন ক্রয় করা হয়েছে, সিরিঞ্জও বিদেশ থেকে ক্রয় করেছেন। সেগুলো শিডিউল অনুযায়ী পাচ্ছেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক আরও বলেন, ‘হাসপাতালগুলোতে জনবলসংকট রয়েছে। আমরা চার হাজার নতুন ডাক্তার নিয়োগ ও ৮ হাজার নার্স নিয়োগ দিচ্ছি। টেকনিশিয়ান নিয়োগের জন্য আমরা ইতিমধ্যে নির্দেশনা দিয়েছি। প্রথমে দুই হাজার ও পরে আরও ১১ হাজার টেকনিশিয়ান নিয়োগ হবে।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ডিবিএল গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এ ওয়াহেদ। এতে স্বাগত বক্তব্য দেন ডিবিএল গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ জব্বার। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ডায়াবেটিক অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সায়েফ উদ্দিন আহমেদ, সাংসদ হাবিবে মিল্লাত, ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি অনুষদের ডিন এস এম আবদুর রহমান প্রমুখ।

আলোচনা সভা শেষে প্রধান অতিথি স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওষুধ কারখানাটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন এবং কারখানা চত্বরে ঔষধি গাছের চারা রোপণ করেন।

১২ একর জমির ওপর প্রায় ২ বিলিয়ন ইউনিট উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন ডিবিএলের প্রকল্পটিতে ট্যাবলেট, ক্যাপসুল, সিরাপ, ইনজেকশন, ইনহেলারসহ প্রায় সব ধরনের ওষুধ উৎপাদিত হবে। প্রায় ৭০০ কোটি টাকা বিনিয়োগে গাজীপুরের কাশিমপুরে সুরাবাড়ি এলাকায় এই প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন