default-image

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নেগেটিভ আসার ২৭ দিন পর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অবসরপ্রাপ্ত যুগ্ম সচিব খলিলুর রহমান মারা গেছেন। আজ বুধবার সকাল ছয়টায় কুয়েত–মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। গত ২৭ জুলাই তিনি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পজিটিভ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।

কুয়েত–মৈত্রী হাসপাতালের চিকিৎসক আবদুর রহিম আজ বুধবার সকালে এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন

মারা যাওয়া খলিলুর রহমানের বাড়ি টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার কালীদাস গ্রামে। তিনি ২০১২ সালে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব হিসেবে অবসরে যান। তিনি একজন কৃষিবিদ ছিলেন। মৃত্যুর সময় তিনি স্ত্রী ও দুই ছেলে রেখে গেছেন।

বিজ্ঞাপন

পারিবারিক সূত্র জানায়, ২৭ জুলাই খলিলুর রহমানের করোনাভাইরাস সংক্রমণ পজিটিভ এলে তাঁকে প্রথমে ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত ৫ আগস্ট তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) আসন খালি না থাকায় তাঁকে কুয়েত–মৈত্রী হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। ওই হাসপাতালের পরীক্ষায় ৬ আগস্ট তাঁর সংক্রমণ প্রতিবেদন নেগেটিভ আসে। মৃত্যুর আগপর্যন্ত তিনি ওই হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

খলিলুর রহমানের ছেলে হাসান রেজোয়ানুর রহমান জানান, আজ বিকেলে তাঁর বাবার লাশ গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলের সখীপুরে আনা হবে। জানাজা শেষে লাশ গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।

খলিলুর রহমানের মৃত্যুতে টাঙ্গাইল-৮ (সখীপুর-বাসাইল) আসনের সাংসদ জোয়াহেরুল ইসলাম এবং সাবেক সাংসদ অনুপম শাহজাহান জয় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0