বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রত্না শেখ ও মীম আক্তার জানান, দুঃখ-দুর্দশার বর্ণনা দিয়ে তাঁরা মাধবদীর স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করে সহযোগিতা চান। পরে মাধবদী থানা প্রেসক্লাবের সভাপতি আল আমিন সরকার বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাসলিমা আক্তার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহ আলম মিয়াকে জানান। এ দুই কর্মকর্তার মাধ্যমে বিষয়টি জেনে তাঁদের কর্মসংস্থান তৈরির জন্য এই রূপচর্চাকেন্দ্র গড়ে তোলার নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন।

default-image

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাছলিমা আক্তার, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. শাহ আলম মিয়া, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম ৭১–এর সভাপতি মোতালিব পাঠান, নরসিংদী চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি আলী হোসেন, নরসিংদী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল পারভেজ ও মাধবদী থানা প্রেসক্লাবের সভাপতি আল আমিন সরকার।

এ সময় অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে মীম আক্তার বলেন, পরিবার থেকে শুরু করে সবখানেই ছিল শুধু অবহেলা আর অবহেলা। সবচেয়ে খারাপ লাগার বিষয় ছিল নিজের পরিবারের অবহেলা। ভারতে গিয়ে রূপচর্চার কাজ শিখেও কাজ পাচ্ছিলেন না। এখন নিজেরা কাজ করে উপার্জন করতে পারবেন। আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ করে দেওয়ায় সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।

জেলায় মোট ২০২ তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তি রয়েছেন জানিয়ে জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন বলেন, তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিদের পুনর্বাসন করতে সরকারি অর্থায়নে প্রতিষ্ঠিত প্রথম রূপচর্চাকেন্দ্র এটি। পর্যায়ক্রমে সবাইকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিভিন্ন কর্মসংস্থানের আওতায় আনা হবে। সমাজে অবহেলিত এই তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিদের মানুষ বিবেচনায় সার্বিক সহযোগিতা করার জন্য সমাজের সর্বস্তরের মানুষের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন