বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
ওই রকম খারাপ কিছু হয়নি। কিছুটা তর্ক-বিতর্ক হয়েছিল। তবে পুলিশ তৎপর ছিল। এখন পরিস্থিতি শান্ত। বিএনপির নেতারা পাশের মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে চলে এসেছেন।
মো. আশাদুর রহমান, কলাপাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত)

বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির প্রশিক্ষণবিষয়ক সম্পাদক এ বি এম মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘হামলাকারীরা ১৪ ফেব্রুয়ারি কলাপাড়া পৌরসভা নির্বাচন সামনে রেখে পৌর এলাকায় শান্তি-শৃঙ্খলার ব্যাপক অবনতি করবে বলে ঘোষণা দিয়েছে। তা ছাড়া বাকি দিনগুলোতে ধানের শীষের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা করতে দেবে না বলে হুমকিও দিয়েছে। আমরা সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনী পরিবেশ এবং সাধারণ মানুষ যাতে ভোটের দিন তাঁদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারে, সে পদক্ষেপ নিতে প্রশাসনসহ নির্বাচন কমিশনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

অভিযোগ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বিপুল চন্দ্র হাওলাদার বলেন, ‘আমি অন্য একটি এলাকায় নির্বাচনী সভায় ব্যস্ত ছিলাম। ওই এলাকায় কী হয়েছে, তা আমি জানি না। তবে আমি খোঁজখবর নিয়ে দেখব।’

কলাপাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আশাদুর রহমান হামলার অভিযোগ নাকচ করে দিয়ে প্রথম আলোকে বলেন, ওই রকম খারাপ কিছু হয়নি। কিছুটা তর্ক-বিতর্ক হয়েছিল। তবে পুলিশ তৎপর ছিল। এখন পরিস্থিতি শান্ত। বিএনপির নেতারা পাশের মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে চলে এসেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন