default-image

পটুয়াখালীর কলাপাড়া পৌরসভা নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী দিদারউদ্দিন আহমেদ মাসুমের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে হামলা ও ভাঙচুর করা হয়েছে। এতে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের দরজা, জানালা, গ্লাস ও সিসি ক্যামেরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

দিদারউদ্দিন আহমেদ কলাপাড়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন চেয়ে না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে নির্বাচন করছেন। গত ২৬ জানুয়ারি দল থেকে তাঁকে বহিষ্কার করা হয়। ১৪ ফেব্রুয়ারি চতুর্থ ধাপে এই পৌরসভার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

দিদারউদ্দিন আহমেদের দাবি, গতকাল রাত সাড়ে ৯টার দিকে নৌকার ৪০ থেকে ৫০ জন লাঠিসোঁটা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হঠাৎ তাঁর ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে হামলা করে। কলাপাড়া পৌরসভায় ভোটের কোনো পরিবেশ নেই। পুরো কলাপাড়া শহর বহিরাগত সন্ত্রাসীদের দখলে চলে গেছে। তিনি নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, ‘হামলাকারীরা আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে গেছে। এখন আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।’

বিজ্ঞাপন

এর আগে দুর্বৃত্তরা কলাপাড়া উপজেলা বিএনপির কার্যালয়ে হামলা চালায়। বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রশিক্ষণবিষয়ক সম্পাদক এ বি এম মোশাররফ হোসেন ও বিএনপির মেয়র প্রার্থী মো. হুমায়ুন কবির অল্পের জন্য রক্ষা পান। হামলায় বিএনপি কার্যালয়ের আসবাবপত্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

আওয়ামী লীগ নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেব তালুকদার বলেন, ‘কে হামলা করেছে, কেন হামলা হয়েছে, তা আমি জানি না। আমি খোঁজখবর নিয়ে দেখছি।’

কলাপাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আশাদুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, ‘হামলার ঘটনা শুনে আমরা গিয়েছিলাম। হামলাকারীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দ্রুত সটকে পড়েছে। এখন পুরো শহরের পরিস্থিতি শান্ত আছে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন