বিজ্ঞাপন

কাতারে অবস্থানরত আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুদের বরাত দিয়ে নুরুল আলম বলেন, আফসার দোহা শহরের একটি ভবনে কাজ করছিলেন। কাজের বিরতিতে নাশতা করতে যাওয়ার পথে পাশের একটি নির্মাণাধীন ভবনের ওপর থেকে লোহার বড় রড তাঁর মাথায় পড়ে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। বিকেলে আত্মীয়ের মাধ্যমে ছেলের মৃত্যুর খবর জানতে পারেন তিনি।

চর চান্দিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. মোশারফ হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, কাতারে নিহত নুরুল আফসার তাঁর এলাকার বাসিন্দা। তাঁর লাশ দেশে আনার ক্ষেত্রে ইউনিয়ন পরিষদের কোনো সহায়তা লাগলে তা করার আশ্বাস দেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন