জানতে চাইলে কোদালা চা–বাগানের ব্যবস্থাপক আবদুল লতিফ বলেন, বন্য হাতি কাদায় আটকে যাওয়ার খবর পেয়ে চা–বাগানের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা হাতি উদ্ধারে বন বিভাগকে সহযোগিতা করে।

হাতি উদ্ধারে সহযোগিতা করতে গিয়েছিলেন শেখ রাসেল অ্যাভিয়ারি অ্যান্ড ইকোপার্কের ভেটেরিনারি সার্জন আলিমুর রাজী। তিনি বলেন, ‘হাতির জন্য ওষুধ ও স্যালাইন নিয়ে যাওয়া হয়। উদ্ধারের পর হাতিটিকে সুস্থ দেখা গেছে। উদ্ধারের পর হাতিটি দ্রুত বনে চলে যায়। কোনো কিছু খাওয়ানোর প্রয়োজন হয়নি।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন