default-image

গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার রায়েদ ইউনিয়নের বড়হর গ্রামে ছয় মাসের এক শিশুকে অ্যাসিডে ঝলসে দেওয়ার অভিযোগে মামলা হয়েছে। ঘটনাটি গত শুক্রবারের হলেও গতকাল মঙ্গলবার মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওই শিশুর নাম আফিয়া আক্তার। সে ওই গ্রামের মো. ইমরানের মেয়ে।

এই ঘটনায় মোছা. শামসুন্নাহার নামের একজনকে গতকাল গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি শিশুটির প্রতিবেশী। তিনি পাশের বাড়ির মো. মঞ্জুরুলের স্ত্রী।

শিশু আফিয়া আক্তারের চাচা আরমান বলেন, শুক্রবার বিকেলে স্বজনেরা শিশুটিকে নিয়ে বাড়ির উঠানে রোদ পোহাচ্ছিল। এ সময় পাশের বাড়ির শামসুন্নাহার এসে উপস্থিত হন। তিনি শিশুটিকে কোলে নিয়ে আদর করেন। একপর্যায়ে শিশুটিকে পাশের বাড়িতে নিয়ে যান তিনি। কিছুক্ষণের মধ্যেই শিশুটির চিৎকার শুনতে পান স্বজনেরা। দ্রুত সেখানে গিয়ে শিশুর শরীর থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখেন।

বিজ্ঞাপন

চাচা আরমান বলেন, কী হয়েছে জিজ্ঞেস করলে শামসুন্নাহার অসংলগ্ন কথাবার্তা বলতে থাকেন। শিশুটিকে খুব দ্রুত একটি বেসরকারি ক্লিনিকে নিয়ে যাওয়া হয়। ক্লিনিকের চিকিৎসক শিশুর শরীরে দাহ্য পদার্থ নিক্ষেপ করা হয়েছে বলে স্বজনদের জানান। পরে কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। পরে শিশুটিকে ঢাকার বারডেম হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করান স্বজনেরা। চিকিৎসা শেষে শিশুকে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়েছে।

গতকাল কালীগঞ্জ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) ফারজানা ইয়াসমিন ও কাপাসিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলম চাঁদ শিশুটির বাড়িতে যান।

কাপাসিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আফজাল হোসাইন প্রথম আলোকে বলেন, এ ঘটনায় অভিযুক্ত নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন