বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রাত ১১টার দিকে উপজেলার নতুন বাজার এলাকায় আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মহিউদ্দন পাটোয়ারী ও আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. আবদুল লতিফের সমর্থকদের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তা দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে রূপ নেয়। সংঘর্ষের সময় উভয় পক্ষের তিনজন আহত হন। পরে আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসকেরা কাপ্তাই ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য সুজিবুর রহমানকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত অন্য দুজনকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে পুলিশ জানায়।

কাপ্তাই সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রওশন আরা রব প্রথম আলোকে বলেন, ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে একজন ইউপি সদস্য মারা গেছেন। সংঘর্ষের সংশ্লিষ্টতা থাকার অভিযোগে পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে আছে।

১৭ অক্টোবর উপজেলায় চিৎমরম ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নেথোয়াই মারমাকে নিজ বাড়িতে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। ওই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ১১ নভেম্বরের নির্বাচন পিছিয়ে ২৮ নভেম্বর ঠিক করা হয়। আগামী ১১ নভেম্বর কাপ্তাই উপজেলার তিন ইউনিয়নে নির্বাচন হবে। গতকাল ছিল প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন