বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্থানীয় কয়েকজন বলেন, কালীরচর গ্রামে ৩৫৪ জনের নামে ফেয়ার প্রাইস কার্ড রয়েছে। খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় প্রত্যেক সুবিধাভোগীকে বছরে পাঁচ মাস ৩০ কেজি করে চাল দেওয়া হয়। প্রতি কেজির দাম ১০ টাকা। চলতি মাসে চাল দেওয়ার সময় ইউপি সদস্য আফছার উদ্দিন সুবিধাভোগী ব্যক্তিদের বলেন, প্রত্যেকের কার্ড নবায়ন করতে হবে। এ জন্য তিনি প্রত্যেকের কাছ থেকে টাকা আদায় শুরু করেন।

কালীরচর গ্রামের সুবিধাভোগী জলিল মোল্লা, হেলাল মোল্লা ও হেমেলা বেগম অভিযোগ করেন, আফছারউদ্দিন তাঁদের নতুন কার্ড দেওয়ার কথা বলে এক হাজার টাকা দাবি করেছেন। অনেকের কাছ থেকে তিনি টাকা নিয়েছেন। এলাকার অসহায় দরিদ্র মানুষ যেন খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির কার্ড পেতে পারেন, সে জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন জানান তাঁরা।

এসব অভিযোগ অস্বীকার করে ইউপি সদস্য আফছার উদ্দিন বলেন, ‘আমি কোনো টাকা চাইনি বা কারও কাছ থেকে টাকা নিইনি। ইউপি নির্বাচনে হেরে গিয়ে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করতেই প্রতিপক্ষ লোকজন দিয়ে এমন অভিযোগ করছে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন