বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রাত নয়টার দিকে বাড়ির পাশে আছুরিঘাট এলাকায় জলাশয়ে মাছ ধরার উদ্দেশ্যে বের হন সুমন। সাধারণত, রাতে মাছ ধরতে গেলে পরের দিন ভোরের দিকে বাড়ি ফিরতেন। আজ বুধবার ভোরে বাড়ি না ফেরায় পরিবারের সদস্যরা তাঁর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেন। তবে তাঁর মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। সকাল আটটার দিকে স্থানীয় লোকজন আছুরিঘাট এলাকায় কালভার্টে এক ব্যক্তির লাশ ঝুলতে দেখে। পরে স্বজনেরা ছুটে গিয়ে লাশটি সুমনের বলে শনাক্ত করেন। খবর পেয়ে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কুলাউড়া থানার পুলিশের সদস্যরা লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।

নিহত সুমনের বাবা লীলাময় বিশ্বাস বলেন, সুমনের দুই বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে। পরিবারের কোনো সদস্যের সঙ্গে সুমনের কলহ ছিল না। এমন ঘটনা কীভাবে ঘটল, তা তিনি বুঝতে পারছেন না।

কুলাউড়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাদির উদ্দিন বেলা সোয়া একটার দিকে মুঠোফোনে বলেন, কালভার্টের রেলিংয়ে নাইলনের দড়ির সঙ্গে লাশটি ঝুলছিল। সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির সময় নিহত সুমনের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়নি। প্রাথমিকভাবে ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এর কারণ এখনো জানা যায়নি। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন