default-image

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার পল্লী বিদ্যুৎ এলাকায় একটি ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মীকে অবৈধ বন্দুক, গুলিসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময়ে তাঁর হেফাজত থেকে একটি ডুপ্লিকেট লাইসেন্স ও একটি এলিট ফোর্সের আইডি কার্ড উদ্ধার করা হয়। আজ মঙ্গলবার দুপুরে তাঁকে গাজীপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তার ওই ব্যক্তি হলেন ময়মনসিংহের কোতোয়ালি থানার গোহাইলকান্দি এলাকার মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে আবুল হোসেন (৩২)। তিনি কালিয়াকৈর উপজেলার সাকাশ্বর এলাকায় জমি কিনে বাড়ি নির্মাণ করে সেখানেই সপরিবার থাকেন। তিনি কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা পল্লী বিদ্যুৎ এলাকার একটি বেসরকারি ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

থানা-পুলিশ জানায়, গতকাল সোমবার সকালে তারা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে, এক নিরাপত্তাকর্মীর কাছে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি রয়েছে। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওই ব্যাংকের প্রধান ফটক থেকে নিরাপত্তাকর্মী আবুল হোসেনকে আটক করে। এ সময় তাঁর কাছ থেকে একটি অবৈধ একনলা বন্দুক, পাঁচ রাউন্ড গুলি, একটি ডুপ্লিকেট লাইসেন্স ও একটি এলিট ফোর্সের আইডি কার্ড উদ্ধার করা হয়। পরে পুলিশ তাঁকে ওই ব্যাংকের ব্যবস্থাপকের কক্ষে নিয়ে যায়। এ সময় তিনি আগ্নেয়াস্ত্রের বৈধ কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেননি।

এ সময়ে তাঁর হেফাজত থেকে একটি ডুপ্লিকেট লাইসেন্স ও একটি এলিট ফোর্সের আইডি কার্ড উদ্ধার করা হয়। আজ মঙ্গলবার দুপুরে তাঁকে গাজীপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
বিজ্ঞাপন

আবুল হোসেন পুলিশকে জানান, তিনি ওই আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি নরসিংদীর রায়পুরা থানার আলীনগর এলাকার মৃত আবুল হাসেমের ছেলে অবসরপ্রাপ্ত সেনা নায়েক জাহের আলীর কাছ থেকে ভাড়া নিয়েছেন। এ ঘটনায় আজ সকালে কালিয়াকৈর থানার উপপরিদর্শক মোরশেদ আলী মোল্লা বাদী হয়ে নিরাপত্তাকর্মী আবুল ও অবসরপ্রাপ্ত নায়েক জাহের আলীকে আসামি করে থানায় একটি মামলা করেছেন। দুপুরে গ্রেপ্তার ব্যক্তিকে গাজীপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনোয়ার হোসেন চৌধুরী জানান, এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে দুজনকে আসামি করে কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা করেছেন। অপর আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন