default-image

সাতক্ষীরার কালীগঞ্জে দশম শ্রেণির মাদ্রাসাছাত্রীকে (১৬) ধর্ষণের অভিযোগে এক মাদ্রাসাশিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপজেলার পাউখালি মাহবুবা রাজ্জাকিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার ওই মাদ্রাসাশিক্ষককে আজ বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ওই শিক্ষকের নাম হাফেজ আবদুল মজিদ (৪২)। তিনি শ্যামনগর উপজেলার শ্রীফলকাটি গ্রামের শওকত গাজীর ছেলে। এর আগে ওই ছাত্রীর বাবা মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই শিক্ষককে আসামি করে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা করেন।

ওই ছাত্রীর সঙ্গে আবদুল মজিদ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এই সম্পর্কের সুযোগ নিয়ে তিনি গত শনিবার বিকেলে ওই ছাত্রীকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে নিজ কর্মস্থলে নিয়ে আসেন। এরপর রাতে ওই ছাত্রীকে মাদ্রাসায় নিজের শয়নকক্ষে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন।

এজাহার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত হাফেজ আবদুল মজিদ পাউখালি মাহবুবা রাজ্জাকিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানায় শিক্ষকতা করেন। আর দশম শ্রেণির ওই ছাত্রী উপজেলার অপর একটি মাদ্রাসার ছাত্রী। ওই ছাত্রীর সঙ্গে আবদুল মজিদ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এই সম্পর্কের সুযোগ নিয়ে তিনি গত শনিবার বিকেলে ওই ছাত্রীকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে নিজ কর্মস্থলে নিয়ে আসেন। এরপর রাতে ওই ছাত্রীকে মাদ্রাসায় নিজের শয়নকক্ষে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। পরদিন রোববার সকালে ওই ছাত্রীকে মাদ্রাসা থেকে মোটরসাইকেলে করে কালীগঞ্জের গড়ের হাট এলাকায় নামিয়ে দেন ওই শিক্ষক। এ সময় তিনি তাকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানান।

বিজ্ঞাপন

ওই ছাত্রী বাড়িতে গিয়ে বিষয়টি তার মা–বাবাকে জানায়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ওই ছাত্রীর বাবা মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাদী হয়ে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন। এরপর রাতেই কালীগঞ্জ থানা-পুলিশ পাউখালি মাহবুবা রাজ্জাকিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানায় অভিযান চালিয়ে ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হুসেন মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেপ্তারকৃত ওই মাদ্রাসাশিক্ষককে আজ দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন। এদিকে মাদ্রাসাছাত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। পাশাপাশি আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে সে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন