বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওই ছাত্রী বাড়িতে গিয়ে বিষয়টি তার মা–বাবাকে জানায়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ওই ছাত্রীর বাবা মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাদী হয়ে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন। এরপর রাতেই কালীগঞ্জ থানা-পুলিশ পাউখালি মাহবুবা রাজ্জাকিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানায় অভিযান চালিয়ে ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হুসেন মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেপ্তারকৃত ওই মাদ্রাসাশিক্ষককে আজ দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন। এদিকে মাদ্রাসাছাত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। পাশাপাশি আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে সে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন