default-image

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার পুনিয়াউট এলাকার কাশবনে ঘুরতে গিয়ে স্থানীয় এক বখাটের হাতে শ্লীলতাহানি ও ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছেন কলেজপড়ুয়া এক তরুণী। আজ বুধবার দুপুরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে।
ওই তরুণের নাম মো. রাহিম (২৪)। তিনি জেলা শহরের দক্ষিণ পৈরতলা এলাকার বাসিন্দা। সে সময় তাঁর সঙ্গে ভিডিও ধারণকারীএকজনসহ কয়েকজন তরুণ উপস্থিত ছিলেন। রাহিম লক্ষ্য মোদের মানব সেবা ফেসবুক পেজ সংগঠনের সাবেক অ্যাডমিন। স্থানীয় ব্যক্তিদের ভাষ্য, ভিডিওর ওই যুবক ৭ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রদলের সদস্য।

বিজ্ঞাপন

জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফুজায়েল চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমি জেলা ছাত্রদলের পদে আসার পর সব ওয়ার্ড কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। আমি ওই ভিডিও দেখেছি। ছাত্রদলের আগের কমিটিতে ওই ছেলে আছে কি না, আমার জানা নেই। বিষয়টি আমি খোঁজ নিয়ে দেখব।’
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ১ মিনিট ১১ সেকেন্ডের একটি ভিডিও বুধবার দুপুরের পর ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। দুপুরে ফেসবুকভিত্তিক সামাজিক সংগঠন আমরাই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উইশ ফর বেটার ব্রাহ্মণবাড়িয়া নামের ফেসবুক পেজে ভিডিওটি পোস্ট করা হয়। এরপর কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মী বিষয়টি সদর থানা–পুলিশকে জানান। পুলিশ ঘটনার হোতাকে শনাক্ত করতে সক্ষম হয়।

ভিডিওতে দেখা যায়, পুনিয়াউট এলাকার কাশবনে ঘুরতে যাওয়া কালো বোরকা পরা তরুণীকে উত্ত্যক্ত করছেন রাহিমসহ কয়েকজন। তরুণীর হাত থেকে ভ্যানিটি ব্যাগ নিয়ে যান। পরে ব্যাগ থেকে টাকা নিয়ে যান রাহিম। ওই তরুণী রাহিমের পায়ে ধরে বড় ভাই সম্বোধন করে চলে যাওয়ার আকুতি করেন। কিন্তু রাহিম ওই তরুণীর গায়ে হাত দিয়ে অনেক্ষণ ধরে রাখেন এবং একপর্যায়ে মাথা থেকে কাপড় সরিয়ে ফেলেন। বারবার বাধা দিলেও রাহিম শোনেননি।

বিজ্ঞাপন

আমরাই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার দুই সদস্য প্রথম আলোকে বলেন, গত রাতে একজন এই ভিডিও তাঁদের পাঠান। বিষয়টি নিয়ে তাঁরা রাতভর ভেবেছেন। পরে ভিডিওতে থাকা ওই তরুণীর চেহারা ঝাপসা করে ভিডিওটি পোস্ট করেন। ভাইরাল হওয়ার জন্য ভিডিওটি পোস্ট করা হয়নি। বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আনার জন্য পোস্ট করা হয়েছে।
লক্ষ্য মোদের মানব সেবা ফেসবুক পেজের বর্তমান অ্যাডমিন নুসরাত পিউ প্রথম আলোকে বলেন, ‘ওই ছেলে আমাদের ফেসবুক পেজের অ্যাডমিন না। ওই ছেলে হয়তো কোনোভাবে আমাদের সঙ্গে যুক্ত ছিল। আর আমরা ওই ছেলেকে চিনি না।’
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রহিম ও পরিদর্শক (অভিযান) ইশতিয়াক আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা ওই বখাটে যুবককে আটকের চেষ্টা করছি। তাঁকে আটক করতে বিভিন্ন জায়গায় অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’

মন্তব্য পড়ুন 0