বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলায় কিশোরী অভিযোগ করেছে, আসামিরা সেনবাগ থেকে গত ২৮ সেপ্টেম্বর তাকে টাঙ্গাইলের শহিদপুর গ্রামের একটি বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে তাকে চার আসামি ছাড়াও অপরিচিত ব্যক্তি ধর্ষণ করেন। আসামিরা ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ধারণ করে তা সামাজিক সামাজিকযোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে এবং হত্যার হুমকি দিয়ে ধর্ষণ করেন বলে ছাত্রীর অভিযোগ। মেয়েটি জানায়, গত সপ্তাহে মেয়েটি কৌশলে পালিয়ে এসে অভিভাবকদের বিষয়টি জানায়। পরে রোববার রাতে থানায় মামলা করে মেয়েটি।

মামলার বিষয়টি প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন বেগমগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহিদুল হক। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, নির্যাতনের শিকার ছাত্রী গতকাল রাতে তাঁর মামার সঙ্গে থানায় এসে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করে।

ওসি মীর জাহিদুল হক বলেন, ওই ছাত্রীর অপহৃত হওয়ার বিষয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি। এ বিষয়ে গতকাল তিনি জানতে চাইলে মেয়েটি বলেছে, অপহরণের পর ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করায় এবং ওই ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়ায় সে কিংবা তার পরিবার থানায় অভিযোগ করেনি।

আজ দুপুরে মেয়েটির স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নোয়াখালীর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পুলিশের একাধিক দল অভিযুক্ত ব্যক্তিদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন