default-image

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায় কিশোরীকে (১৪) ধর্ষণচেষ্টার সময় এক ব্যক্তিকে হাতেনাতে আটক করা হয়েছে। আটক ব্যক্তিকে আজ শনিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে শুক্রবার বিকেলে ধর্ষণচেষ্টার সময় উপজেলার একটি গ্রাম থেকে ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়। অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির নাম মোজাম্মেল হক (৫০)।

স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্র জানায়, শুক্রবার বিকেলে ওই কিশোরীর মা–বাবা মাঠে রসুন রোপণের কাজে যান। আর কিশোরী বাড়িতে রান্না করছিল। পূর্বপরিচিত মোজাম্মেল হক বাড়িতে ঢুকে কিশোরীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এ সময় কিশোরীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে মোজাম্মেলকে আটক করেন। পরে তাঁকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। রাতে ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মামলা করেন। পুলিশ শনিবার দুপুরে ওই মামলায় অভিযুক্ত মোজাম্মেলকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে নাটোরের আমলি আদালতে হাজির করেন। আদালত তাঁর জামিন নামঞ্জুর করে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

বড়াইগ্রাম থানার পরিদর্শক আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, এলাকাবাসীর হাতে আটক মোজাম্মেল হককে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা শনিবার সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই কিশোরী ও আশপাশের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, অভিযুক্ত ওই ব্যক্তিকে মেয়েটি চাচা বলে ডাকত।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0