কুমারখালীর মেয়রসহ কুষ্টিয়ায় এক দিনে সর্বোচ্চ ৭৪ জনের করোনা শনাক্ত

বিজ্ঞাপন
default-image

কুষ্টিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ৭৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে কুষ্টিয়ার কুমারখালী পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সামসুজ্জামান অরুণ ও তাঁর ছোট ভাই পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আকতারুজ্জামান নিপুণ এবং একই পৌরসভার ৪ নম্বর কুন্ডুপাড়া ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ফরিদ ইকবাল খান রয়েছেন।

আজ সোমবার বেলা দেড়টায় জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়। জেলায় এ নিয়ে কোভিড-১‍৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৬৬৮ জন। মারা গেছেন ৩৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৪২ জন। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত অনুপাতে আক্রান্তের হার প্রায় ৩৬ শতাংশ। এখন পর্যন্ত জেলায় ২৪ ঘণ্টায় এটিই সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যা।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় যতজন পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন তাঁদের মধ্যে অন্তত ৪২ জনই কুষ্টিয়া পৌরসভার বাসিন্দা। ঈদের পরের দিনই রোগী ব্যাপক হারে বাড়ার খবরে পৌরবাসীর মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। সব মিলিয়ে শুধু কুষ্টিয়া সদর উপজেলাতেই কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৯৬৮ জন।

অবশ্য ঈদুল আজহার আগে প্রথম আলোর কাছে জেলায় কর্মরত চিকিৎসা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও চিকিৎসকেরা পৌর এলাকায় রোগী বেড়ে যাওয়ার ব্যাপারে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। এ নিয়ে প্রথম আলোয় প্রতিবেদনও প্রকাশিত হয়েছে।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) তাপস কুমার সরকার প্রথম আলোকে বলেন, কুষ্টিয়া পৌর এলাকায় দ্রুত করোনা ছড়াচ্ছে। বাড়িতে থাকা বয়স্ক ও অসুস্থ লোকজনকে সুরক্ষিত রাখার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

কুমারখালী উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও ইউএনও রাজীবুল ইসলাম খান বলেন, পৌর মেয়র, তাঁর ছোট ভাই, একজন কাউন্সিলরসহ উপজেলায় এক দিনে সর্বোচ্চ ১৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মেয়র ও তাঁর ভাই বর্তমানে সুস্থ আছেন। তাঁরা বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন