কুলাউড়ায় করোনায় ইউপি চেয়ারম্যানের মৃত্যু

বিজ্ঞাপন

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার বরমচাল ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা আবদুল আহবাব চৌধুরী (৭৮) করোনায় সংক্রমিত হয়ে মারা গেছেন। সিলেট নগরে অবস্থিত একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ বুধবার সকালে তিনি মারা যান।
আবদুল আহবাব চৌধুরী আওয়ামী লীগের উপজেলা কমিটির সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ও বর্তমান মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সদস্য ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

স্থানীয়, কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আহবাব চৌধুরী দীর্ঘদিন ধরে হৃদ্‌রোগ ও যকৃতের সমস্যায় ভুগছিলেন। সম্প্রতি তাঁর শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দেয়। এ অবস্থায় গত শুক্রবার প্রথমে তাঁকে কুলাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় স্বজনেরা ওই দিনই তাঁকে সিলেটের একটি হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন। সেখানে তিনিসহ তাঁর স্ত্রী নূরজাহান চৌধুরীর (৬৫) নমুনা পরীক্ষা করে ফলাফল করোনা ‘পজিটিভ’ আসে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অবশেষে আজ বেলা ১১টার দিকে আহবাব চৌধুরী মারা যান। তবে নূরজাহান চৌধুরীর শারীরীক অবস্থা ভালো। তিনি হোম আইসোলেশনে রয়েছেন। আজ বিকেল চারটায় স্থানীয় বরমচাল উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজের মাঠে জানাজা শেষে তাঁকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কুলাউড়া উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ নূরুল হক মুঠোফোনে বলেন, আহবাব চৌধুরীকে তাঁদের হাসপাতালে নিয়ে আসার পর তাঁর শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা ছিল ৭৭ শতাংশ। অথচ সুস্থ মানুষের শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা ৯৫ শতাংশের ওপরে থাকার কথা। এ কারণে তাঁকে সিলেটে স্থানান্তর করা হয়।
মোহাম্মদ নূরুল হক আরও বলেন, কুলাউড়ায় এ পর্যন্ত ২৩২ জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন। এর মধ্যে ১৮৯ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন এবং তিনজন মারা গেছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন