default-image

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে চাচাতো ভাইদের হামলায় শামীম আহমদ (৫১) নামের এক প্রবাসী নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহত শামীমের বাড়ি উপজেলার মুকুন্দপুর গ্রামে। তিনি সৌদি আরবে থাকতেন। এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার রাতে কুলাউড়া থানায় হত্যা মামলা হয়েছে।

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, মুকুন্দপুর গ্রামে ১০ শতক জমির মালিকানা নিয়ে শামীম আহমদের পরিবারের সঙ্গে তাঁদের চাচাতো ভাই সুফিয়ান মিয়ার পরিবারের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। শামীম গত ৭ জানুয়ারি দেশে ফেরেন। গতকাল বেলা একটার দিকে শামীমসহ তাঁর পক্ষের লোকজন বিরোধপূর্ণ জমিতে বাঁশের বেড়া দেন। এরপর সুফিয়ানের পক্ষের লোকজন গিয়ে বেড়া উপড়ে ফেলেন। এ সময় বাধা দিতে গেলে প্রতিপক্ষের লোকজন লাঠিসোঁটা নিয়ে শামীমের ওপর হামলা চালান। গুরুতর আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে তাঁর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার জেলা সদরে অবস্থিত ২৫০ শয্যার হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়ে দেয়।

বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সুফিয়ান আহমদের স্ত্রী হ্যাপি বেগম, হ্যাপির ভাই সাজু ও বোন শিল্পী বেগমকে আটক করে পুলিশ থানায় নিয়ে যায়। গতকাল রাত ১১টার দিকে নিহত শামীমের বড় মেয়ে সাদিয়া শামীম সুমাইয়া বাদী হয়ে সুফিয়ান মিয়া, সুফিয়ানের ভাই সোহেল আহমদসহ সাতজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও চার থেকে পাঁচজনকে আসামি করে মামলা করেন। জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষ মারপিট করে শামীমকে খুন করেছেন বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়।

কুলাউড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম আজ বুধবার সকালে মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির সময় নিহত শামীমের ঠোঁট ও মুখে কিছু আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। আটক তিন ব্যক্তিকে শামীমের মেয়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে মৌলভীবাজারের আদালতে পাঠানো হবে। সুফিয়ানসহ এজাহারভুক্ত অপর আসামিরা পলাতক। তাঁদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন