বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওই বাড়ির মালিক ইছরাইল আলী বলেন, তিনি স্থানীয় ইটারঘাট বাজারে জ্বালানি তেলের ব্যবসা করেন। সকালে বাড়ির এক শিশু ছাদে খেলতে যায়। এ সময় ছাদের কোণে বনবিড়ালের তিনটি বাচ্চার সন্ধান পায়। উঠানে নামানোর পর কৌতূহলী লোকজন সেগুলোকে দেখতে ভিড় জমান। অতীতে তাঁদের এলাকায় এ বন্য প্রাণী দেখা যায়নি। ফলে প্রথমে সঠিকভাবে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

বন্য প্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের মৌলভীবাজার সদর রেঞ্জ কর্মকর্তা গোলাম সারোয়ার মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, তিনটি বাচ্চা বনবিড়ালের। এগুলোর বয়স চার-পাঁচ দিন হতে পারে। বনবিড়াল সাধারণত কবরস্থান, বাঁশঝাড় ও ঝোপঝাড়ে বেশি থাকে। ছাদটি নিরিবিলি পেয়ে মা বনবিড়াল সেখানে বাচ্চার জন্ম দিতে পারে। তিনটি বাচ্চাকে ছাদে নিয়ে রেখে দেওয়া হয়েছে। রাতে কোনো এক সময় হয়তো মা এসে সেগুলো নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যেতে পারে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন