জানতে চাইলে আজ শনিবার সকালে কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, হাসিবুরের চাচা অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেছেন। মামলায় তিনি উল্লেখ করেছেন, পূর্বশত্রুতার জেরে কে বা কারা তাঁর ভাতিজাকে হত্যা করেছে।

ওসি আরও বলেন, পুলিশ বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

নিহত ব্যক্তির পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত রোববার রাত নয়টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের সিঙ্গার মোড়ে হাসিবুর পত্রিকা অফিসে ছিলেন। তখন মুঠোফোনে একটি কল পেয়ে অফিস থেকে বের হয়ে যান। এর পর থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি। তাঁর মুঠোফোনটিও বন্ধ পাওয়া যাচ্ছিল। এ ঘটনায় কুষ্টিয়া মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করে তাঁর পরিবার। এর চার দিন পর গত বৃহস্পতিবার দুপুরে কুমারখালী পৌরসভার তেবাড়িয়া এলাকায় নির্মাণাধীন গোলাম কিবরিয়া সেতুর নিচে গড়াই নদ থেকে হাসিবুরের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করা হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন