কুষ্টিয়ায় জমির দলিল জালিয়াতির চক্রের সদস্য গ্রেপ্তার

বিজ্ঞাপন
default-image

কুষ্টিয়ায় জমির দলিল জালিয়াতি চক্রের সদস্য ব্যবসায়ী মহিবুল ইসলামকে (৩৮) গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পুলিশ। রোববার বিকেল চারটার দিকে কুষ্টিয়া শহরের এনএস রোড থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর তাঁকে ডিবির কুষ্টিয়া জেলা কার্যালয়ে নেওয়া হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত প্রথম আলোকে বলেন, জমির দলিল জালিয়াতি মামলার পর থেকেই মহিবুলকে খোঁজা হচ্ছিল। কিন্তু তিনি পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন। তাঁকে ধরায় এখন পরিষ্কার হবে এই বড় ঘটনার সঙ্গে আরও কারা জড়িত আছে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
গত বছর কুষ্টিয়া শহরের এনএস রোডের বাসিন্দা এম এ ওয়াদুদের পরিবারের সদস্যদের জাতীয় পরিচয়পত্র নকল করে তাঁদের তিনটি জমি কেনাবেচা করে একটি চক্র। এসব জমির আনুমানিক মূল্য ১০ কোটি টাকার বেশি।

মামলার এজাহার সূত্র জানায়, গত বছর কুষ্টিয়া শহরের এনএস রোডের বাসিন্দা এম এ ওয়াদুদের পরিবারের সদস্যদের জাতীয় পরিচয়পত্র নকল করে তাঁদের তিনটি জমি কেনাবেচা করে একটি চক্র। এসব জমির আনুমানিক মূল্য ১০ কোটি টাকার বেশি। এ ঘটনায় ওয়াদুদ বাদী হয়ে গত সোমবার ১৮ জনের নাম উল্লেখ করে কুষ্টিয়া মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। ওই মামলার ৫ নম্বর আসামি সদ্য বিলুপ্ত কুষ্টিয়া শহর যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক আশরাফুজ্জামান সুজন। এ ঘটনায় এজাহারভুক্ত আরও পাঁচ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এর মধ্যে তিনজনকে তিন দিন করে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ সূত্র জানায়, ওই মামলার এজাহারভুক্ত ১০ নম্বর আসামি কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার মহিবুল ইসলাম (৩৬)। মহিবুল আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে জানিয়েছেন, জমির দলিল জালিয়াতি চক্রের সদস্য অন্য এক মহিবুল ইসলাম। এই মহিবুলের কুষ্টিয়া শহরের বড় বাজার এলাকায় হার্ডওয়্যারের দোকান রয়েছে। ওই মহিবুলই জমি কেনায় টাকা বিনিয়োগ করেছেন। ওই মহিবুলের সঙ্গে আরও কয়েকজন আছে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ সূত্র আরও জানায়, তথ্য পাওয়ার পরই ডিবি পুলিশ ব্যবসায়ী মহিবুল ইসলামকে ধরতে অভিযান শুরু করে। কিন্তু মামলার পর থেকেই তিনি বিভিন্নভাবে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন। রোববার দুপুরে ডিবি পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে মহিবুল এনএস রোডের একটি জায়গায় বসে আছেন। এই খবর পেয়ে সেখানে দ্রুত ডিবি পুলিশ গিয়ে তাঁকে গ্রেপ্তার করে।

জমির দলিল জালিয়াতি চক্রের আরেক সদস্য যুবলীগ নেতা আশরাফুজ্জামানের রিমান্ড শুনানি রোববারও হয়নি। ওই রিমান্ড শুনানি সোমবার হতে পারে বলে এসপি তানভীর আরাফাত প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন